কোন কোন জেলায় কবে কবে ঢুকবে লক্ষীর ভান্ডারের টাকা? জানিয়ে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী! রইল ভিডিও।

নিজস্ব প্রতিবেদন: একুশের নির্বাচনে জয়লাভ করার পর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের গৃহীত সবথেকে বড় প্রকল্প হল লক্ষীর ভান্ডার। রাজ্যের মহিলাদের সুবিধার্থেই এই প্রকল্প গ্রহণ করেছেন তৃণমূল নেত্রী। নিঃসন্দেহে অত্যন্ত অল্প সময়ের মধ্যেই এই প্রকল্প জনপ্রিয়তা লাভ করেছে তাতে কোন সন্দেহ নেই। আগস্ট মাস থেকে এই প্রকল্পের জন্য আবেদন গ্রহণ করা শুরু হয়েছিল। মাত্র মাস দুয়েক সময়ের মধ্যেই প্রায় 1 কোটি 80 লক্ষ মহিলা এই প্রকল্পের জন্য আবেদন করেছেন। যার মধ্যে রাজ্য সরকারের তরফে প্রায় দেড় কোটি আবেদন মঞ্জুর করে দেওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্পের আবেদন করার পরপরই যে কোন মহিলার ফোনে দুটি এসএমএস আসার কথা। এর মধ্যে একটি এসএমএস হল অ্যাপ্লিকেশন আইডি।যাদের ফোনে ইতিমধ্যেই আবেদন করার পর দুটি এসএমএস চলে এসেছে তারা খুব শীঘ্রই সম্ভবত পুজোর আগে লক্ষীর ভান্ডার এর টাকা পেতে চলেছেন। তবে এখনো পর্যন্ত যাদের ফোনে দুটি এসএমএস আসেনি তাদের কোন চিন্তার কারন নেই। কোন কারণে হয়তো তাদের তথ্য যাচাই করা হচ্ছে। সেই প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলেই তাদের একাউন্টে টাকা পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

তবে সম্প্রতি এই প্রকল্পের টাকা পেতে গিয়ে রাজ্যের বেশ কয়েক জায়গায় মহিলারা সমস্যায় পড়তে পারেন বলে জানা গিয়েছে। কারন সামনের 30 শে অক্টোবর রাজ্যের কয়েকটি জায়গায় রয়েছে উপনির্বাচন। সেইমতো ওই অঞ্চলগুলিতে ইতিমধ্যেই আদর্শ নির্বাচনী আচরণবিধি লাঘু করে দেওয়া হয়েছে কমিশনের তরফ থেকে।তাই এই মুহূর্তে সেইসব এলাকায় কোনরকম সরকারি প্রকল্পের সুবিধা দেওয়া সম্ভব নয়।

কিন্তু স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই প্রসঙ্গে জানিয়েছেন,যেসব জায়গায় উপনির্বাচন রয়েছে সেই জায়গার মহিলারা সেপ্টেম্বর এবং অক্টোবর মাসের টাকা একসাথে পেতে চলেছেন। অর্থাৎ বেশ বড় অঙ্কের টাকা ঢুকবে তাদের একাউন্টে। সুতরাং দেরী হলেও চিন্তার কোনো কারণ থাকছে না। যদি আপনি এখনো এই প্রকল্পের অন্তর্গত হওয়া সত্বেও আবেদন না করে থাকেন তাহলে আর দেরি করবেন না। যত দ্রুত সম্ভব আবেদনের কাজ সমাপন করে ফেলুন।

Back to top button