জন্মসূত্রে বাঙালি নন, তবুও বাংলা সিনেমা দাপিয়ে বেড়িয়েছেন সুপারস্টার জিৎ! জানুন তার স্বপ্ন পূরণের কাহিনী।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- সেই সময় প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় অর্থাৎ ২০০১ সালে প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় কলেজ পড়ুয়া এক ছাত্রের চরিত্রে অভিনয় প্রত্যাখ্যান করেছিল বলেই এই বাংলা পেয়েছে নতুন এক নায়ক কে ।যিনি বিগত দুই দশক ধরে এক নম্বর অভিনেতা হিসেবে পরিচিতি লাভ করে আসছে পরিচালিত সেই ছবি তোলপাড় করে দিয়েছিল গোটা টলিউড ইন্ডাস্ট্রি যেখানে মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেছিল জীতেন্দ্র মাদনানি অর্থাৎ বাংলার অভিনয়জগতে নক্ষত্র জিৎ ।

২০০১ সালে তেলুগু সিনেমাতে অভিনয় করেছিলেন কিন্তু সেটি জনপ্রিয়তা পায়নি. কিন্তু ২০০২ সাল ছিল তার জন্য শুভ একটি বছর । ২০০২ সালে সাথী সিনেমা মাধ্যমে অভিনয় জগতে পদার্পণ করেন এই বাংলায় । তারপর আর তাকে পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি । কিন্তু জিৎ এর জীবন কাহিনী থেকে গেছে অনেকগু-লি অসমাপ্ত গল্প যা আজকের প্রতিবেদনে তুলে ধরব । তেলেগু সিনেমা টি জনপ্রিয়তা লাভ করতে না পারার কারণে ফিরে আসে এই কলকাতাতে ।

তবে তার আগে অনেক ধরনের চেষ্টাচরিত্র করেছে তিনি ।বলিউডের নায়ক হবার স্বপ্ন ছিল ছোটবেলা থেকে । যার ফলে মডেলিং জগতে পা রেখেছিলেন তিনি । ১৯৯৫ সালে তিনি পাড়ি দিয়েছিলেন মুম্বাইয়ে। ২ বছরের চেষ্টার পর অবশেষে একটি হিন্দি মিউজিক অ্যালবামে কাজের সুযোগ পেলেন তিনি।অ্যালবামের নাম, ‘বেওয়াফা তেরা মাসুম চেহেরা’। এরপর বলিউডের বেশ কিছু ছবির জন্য অডিশন দিতে শুরু করেন তিনি।

কিন্তু প্রতিবারই সুযোগ ফসকে যাচ্ছিল তার হাত থেকে। কলকাতা আসার পর সাথী সিনেমাতে অভিনয় করে যা সৃষ্টি করলো মুহূর্তের মধ্যে ইতিহাস সিনেমাতে অভিনয় করার পর তাকে এক নামে গোটা ভারতবর্ষের লোক চিনতে শুরু করে দেয় অসম্ভব সুন্দর ভাবে দর্শকদের মনে দাগ কেটে দিয়েছিল এই সাথী সিনেমাটি । এরপর আর তাকে ফিরে তাকাতে হয়নি। ‘সঙ্গী’, ‘নাটের গুরু’, ‘বন্ধন’, ‘ঘাতক’, ‘শুভদৃষ্টি’, ‘প্রেমী’ থেকে শুরু করে ‘দুই পৃথিবী’, ‘সুলতান’, ‘বস’, ‘সাত পাকে বাঁধা’, ‘অসুর’, কমেডি হোক, রোমান্টিক বা অ্যাকশন, ‘সাথী’র নায়ক ছাড়া যেন অসম্পূর্ণ টলিউড।

Back to top button