ই-শ্রম কার্ডের টাকা ঢোকার আগে ব্যাঙ্ক একাউন্ট থেকে কি কাটবে টাকা? কি বলছে ব্যাঙ্কগুলি? জানুন বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন :-বর্তমানে সবথেকে জনপ্রিয়তা পাচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকারের এই ই শ্রম কার্ড ।আপনি কি এখনো পর্যন্ত এই কার্ডে নিজের নাম নথিভুক্ত করেননি ?তাহলে হতে পারে সরকারি যে সমস্ত প্রকল্পগু-লি-র রয়েছে সেই সমস্যার প্রকল্পগু-লি আপনি জেনে বুঝে হাতছাড়া করছেন ।

এই সমস্ত প্রকল্পে একাধিক সুযোগ-সুবিধা পাওয়া যাচ্ছে এবং সেই সমস্ত সুযোগ সুবিধা গুলো যদি আপনি পেতে চান তাহলে অতি অবশ্যই নিজের নামে একটি কার্ড তৈরি করিয়ে নিন।এই কার্ড তৈরি করতে গেলে আপনি একে অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে অর্থাৎ অনলাইন আবেদন করে তৈরি করতে পারেন ।

পাশাপাশি এই কার্ড তৈরি করার সাথে সাথে আপনার নামে দুটি অটোমেটিকলি বীমা প্রকল্প চালু হয়ে যাবে। তবে সবাই এই কার্ডের জন্য আবেদন করতে পারবে না ।আমাদের দেশের 38 লক্ষ অসংগঠিত শ্রমিক রয়েছে তারা একমাত্র ইসলাম কার্ডের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

এই কার্ডের একাধিক সুযোগ-সুবিধা রয়েছে তবে যে দুটি প্রকল্প অটোমেটিক চালু হয়ে যাবে তার মধ্যে একটি হচ্ছে প্রধানমন্ত্রী জীবন জ্যোতি বীমা এবং অন্যটি সুরক্ষা যোজনা। প্রধানমন্ত্রী জীবনজ্যোতি বীমা যোজনা জন্য আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্টের থেকে বাৎসরিক ৩৩০ টাকা কেটে নেওয়া হবে।

তবে এর পরিবর্তে আপনি আপনার মৃত্যুর ক্ষতিপূরণ হিসেবে ২ লক্ষ টাকা পাবেন।অপরদিকে সুরক্ষা যোজনা জন্য আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে বাৎসরিক ১২ টাকা কেটে নেওয়া হবে।এরপ পরিবর্তে আপনার অ্যা-ক্সি-ডে-ন্টে মৃত্যু হলে ২ লক্ষ টাকা এবং আংশিক বিকলাঙ্গ হয়ে পরলে ১ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ পাবেন।

তবে আপনি চাইলে এই বীমা গু-লি বন্ধ করতে পারবেন। এক্ষেত্রে ব্যাংকে লিখিত আবেদন করতে হবে। বাকি অন্যান্য প্রকল্পগুলির সুযোগ সুবিধা পাওয়ার জন্য অবশ্যই ব্যাংকের সাথে যোগাযোগ করতে হবে।

Back to top button