লক্ষীর ভান্ডারের ফর্ম জমা করলেই মাথাপিছু 4000 টাকা করে দেওয়ার ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী! জানুন বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পের সাথে সাথে কৃষকদের জন্য এক বড় সুখবর রয়েছে। এই মুহূর্তে পুজোর প্রাক্কালে এই ধরনের সুখবর পেয়ে রীতিমতো আনন্দে আ-ত্মহারা ভারতের কৃষকেরা। আমরা জানি প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদি কিষান যোজনা মাধ্যমে কৃষকদেরকে প্রতিমাসে ২০০০ টাকা করে সরকারি অনুদান দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। ইতিমধ্যে সেই প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়িত হয়েছে।

কিন্তু বিশেষ উপহার দিতে চলেছে প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদী এই দেশের কৃষকদের জন্য । রাজ্যে এবং গোটা দেশে যে সমস্ত সুযোগ সুবিধা গুলি সরকারি তরফ থেকে পাওয়া যাচ্ছে সেগুলি এককথায় অনবদ্য এবং এই সুযোগ সুবিধাগুলি ছত্রছায়ায় সে প্রতিনিয়ত উপকৃত হয়েছে প্রায় কয়েক কোটি মানুষ। আমরা জানি যে কৃষকদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদী কিষান নিধি যোজনা প্রকল্পের সূচনা করেছিলেন। এবং এই প্রকল্পের মাধ্যমে কৃষকরা ২০০০ টাকা করে পাচ্ছিলেন।

কিন্তু পূজা প্রাক্কালে প্রধানমন্ত্রী এমনটা সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছেন যে ২০০০ টাকার পরিবর্তে কৃষকদেরকে দেওয়া হবে চার হাজার টাকা করে। অর্থাৎ যে সমস্ত কৃষকেরা বছরে ৬ হাজার টাকা করে অনুদান পাচ্ছিলেন তারা এবার থেকে পাবেন ১২ হাজার টাকা অনুদান। অপরদিকে লক্ষী ভান্ডার প্রকল্প রয়েছে একটা বড়সড় আপডেট । মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর কথা রেখেছে।

প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী ভোটের পর মহিলাদের একাউন্টে ৫০০ টাকা এবং হাজার টাকা করে পাঠানো কাজকর্ম শুরু করে দিয়েছে। যা লক্ষী ভান্ডার প্রকল্প নামে পরিচিত। এই লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পের আবেদন পত্র জমা নেওয়ার কাজ গত ১৫ আগস্ট থেকে ১৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত হয়েছিল। এমনটাই জানানো হয়েছে দরকার হলে সময় আরো বাড়ানো হবে। ইতিমধ্যে প্রায় দেড় কোটি মহিলা আবেদন করে ফেলেছেন।

তবে এমনটা জানানো হচ্ছে যে ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট ডিটেইলস দিয়েছেন তাদের অতি অবশ্যই ব্যাংক অ্যাকাউন্টের সাথে আধার কার্ড লিঙ্ক থাকতে হবে। নইলে টাকা প্রবেশ করবে না। তার পাশাপাশি আপনার যদি কোন অর্থে সিঙ্গেল একাউন্ট না থেকে থাকে তাহলে আপনারা জয়েন্ট একাউন্ট দিতে পারেন। কিন্তু অতি অবশ্যই আপনার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের সাথে আধার কার্ড লিঙ্ক থাকা জরুরি। তার পাশাপাশি আবেদনপত্রের সাথে ভোটার কার্ড আধার কার্ডের এবং রেশন কার্ডের জেরক্স যুক্ত করা বাধ্যতামূলক।

Back to top button