রাজপথে গাড়ি থামিয়ে টিকটক ভিডিও! সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতেই শাস্তি পেলেন যুবতী!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- সবকিছু একটি নির্দিষ্ট সময় এবং নির্দিষ্ট জায়গা রয়েছে । আপনি যদি এমন টা বলেন যে আপনি গাছের উপরে নাচানাচি করবেন তাহলে কি কখনো সেটা সম্ভব ? বা ধরুন এমনটা আপনার চিন্তাভাবনা হয় ব্যস্ততম রাস্তার মধ্যে যানজট সৃষ্টি করে নিত্য পরিবেশন করবেন এবং সেই ভিডিও প্রকাশ করার পর জনগণের কাছ থেকে প্রশংসা পাবেন এমনটাই সম্ভব নয় বরং বি-পদে পড়তে হবে আপনাকে ।

সেই ঘটনার জলজ্যান্ত উদাহরণ ইন্দোরের এই যুবতী । যিনি এমন একটি কাণ্ড করে বসেছেন যা চোখে পড়েছে খোদ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর । মানুষ আজকাল জনপ্রিয়তা পাওয়ার জন্য এবং ভাইরাল হওয়ার জন্য এমন কিছু ধরনের দুঃসাহসিকতার মতন কাজ করে যা পরবর্তী ক্ষেত্রে সৃষ্টি করে গভীর স-মালোচনা এমনকি কখনো কখনো তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হয় । কখনোই এই ধরণের সভ্য সমাজে কাছে কাম্য নয় ।

আমরা সেই ধরনের ঘটনা কথা আলোচনা করতে চলেছি আজকের এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে । যেখানে দেখা যাচ্ছে যে এক যুবতী নৃত্য পরিবেশন করেছেন । আপনি হয়তো ভাবছেন যে নাচ করা ভালো জিনিস জিনিস । এতে অসুবিধা কোথায় ? অবশ্য অসুবিধা । কারণ তিনি যেখানে নেচেছে সেটা আদতে নাচার জায়গা নয় বরং গাড়ি-ঘোড়া চলাচল জায়গা অর্থাৎ রাস্তাঘাটে তিনি নৃত্য পরিবেশন করেছে । যার ফলে সৃষ্টি হয়েছিল ব্যাপক যানজট।

ঘটনাটি ঘটেছে ইন্দোর শহরের এক ব্যস্ততাপূর্ণ ট্রাফিক সিগনালে। এদিন তিনি এই সিগনালে দাঁড়িয়ে কোনোরকম মাস্ক ছাড়াই কোমর দুলিয়ে ভিডিও সুট করেন। তার এই কান্ড কারখানার কারণে দাঁড়িয়ে যায় থরে থরে গাড়ি। থমকে যাওয়া যাত্রীরা মুহূর্তের মধ্যেই যানজট তৈরি করে। পরবর্তী তে তার এই নাচের ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করলে ব্যাপক স-মালোচনার মু-খে পড়তে হয় তাকে।ভাইরাল হওয়া যুবতীর নাম শ্রেয়া কালরা।

তার এই ভিডিও গিয়ে পৌঁছায় খোদ মধ্যপ্রদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নরোত্তম মিশ্রের কাছে। তিনি বেশ ক্ষুদ্ধ হয়েই সংবাদ সংস্থা এএনআই কে জানান “মহিলার উদ্দেশ্যে যাই থাকুক না কেন তার কাজ টি অবশ্যই ভুল ছিল” তার বি-রুদ্ধে মোটরগাড়ি আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।এমনকি আপনি জানলে অবাক হবেন যে তার ইনস্টাগ্রামের একাউন্ট ইতিমধ্যে ডিলিট করে দেওয়া হয়েছে ।

Back to top button