খালি গলায় দুর্দান্ত গান গেয়ে আবারও তুমুল ভাইরাল রানাঘাটের রানু মন্ডল! রইল ভিডিও।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- একথা অস্বীকার করার কোন উপায় নেই যে একসময় রানু মন্ডল দখল করেছিল খবরের শিরোনাম শুধুমাত্র তার কণ্ঠস্বর দিয়ে । মাঝখানে তিনি হারিয়ে গিয়েছিলেন এবং ফিরে গিয়েছিলেন সে রানাঘাট স্টেশন চত্বরে ।। তবে পুনরায় আস্তে আস্তে আবার রানু মন্ডল কিন্তু দখল করতে শুরু করেছে খবরের শিরোনাম তার কন্ঠস্বর মাধ্যম দিয়ে ।তার কন্ঠস্বর গোটা নেট দুনিয়ায় ছড়িয়ে পড়ল শুধুমাত্র বিশেষ কিছু কারণের জন্য তাকে আবার ফিরে আসতে পেরেছিল আবার আগের অবস্থায় ।

এমনটা মনে করা হয় যে রানু মন্ডল যেহেতু না চাইতে অনেক কিছু জিনিস অর্থাৎ নাম খ্যাতি টাকাপয়সা জনপ্রিয়তা পেয়ে গিয়েছিলো তাই তার শরীরের মধ্যে জন্মেছিলো বিপুল পরিমাণে অহংকার । এবং এই অ-হংকার জন্য তিনি তার অনুরাগীদের সাথে এবং সাংবাদিকদের সাথে দু-র্ব্যবহার করতে শুরু করে । যার ফলে সাধারণ মানুষ তাকে আবার অপছন্দ করতে শুরু করে । সেই সূত্রে তিনি আবার ফিরে যান রানাঘাট স্টেশন চত্বরে নিজের বাড়িতে ।

লকডাউন এর সময় তার অবস্থা ভীষণ গরম হয়ে গেছিলো তা আমরা প্রত্যেকে জানি । রানাঘাটের রানু মন্ডল কে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া বা অন্যান্য মাধ্যমে এত যে বাড়বাড়ন্ত সেটা মোটেও ভাল চোখে দেখে না অনেকে । আবার অনেকে এই জিনিসটাকে ঈশ্বরপ্রদত্ত গুণ হিসেবে বিবেচনা করে থাকেন । অনেকে মনে করেন যে রানাঘাটের রানু মন্ডল এর মতন খুঁজলে হয়তো অনেক বাড়িতেই এরকম প্রতিসিশীল মানুষের খোঁজ পাওয়া যাবে ।

যদিও এখনকার যুগে সাফল্যের চাবিকাঠি মানেই সোশ্যাল মিডিয়া । সোশ্যাল মিডিয়ায় তাকে পরিচয় দিয়েছে সেটা নতুন করে বলার অপেক্ষা রাখে না ।তবে আরও একবার খালি গলায় গান গেয়ে ভাইরাল হলেন রানু মন্ডল । এখানে আমরা যে ভিডিওটি দেখতে পাচ্ছি, তিনি তাঁর বাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে একটি গান গাইছেন। আর সেটি হল বলিউড একটি অতি পুরনো গান আকেলে হে হাম চালে আও। তার পরনে ছিল একটি শাড়ি।

পুরো গানটি গাওয়ার পর তিনি একটি সুন্দর মুচকি হাসি দেন দর্শকদের। একটি ইউটিউবর এই ভিডিওটি ক্যামেরাব-ন্দি করে ইউটিউবে পোস্ট করেছেন। নেট দুনিয়ায় তার ভক্তরা বর্তমানে এই ভিডিওটি দেখেছেন।ভিডিওটি ইউটিউবে প্রায় সাত দিন আগে পোস্ট করা হয়েছে। Bong Official নামক ইউটিউব চ্যানেলে একটি ছাড়া আছে। ১৭ হাজারেরও বেশি মানুষ এই ভিডিওটি পছন্দ করেদেখেছেন ও হাজার হাজার মানুষ ভিডিওটিতে লাইক করেছেন। অনেকে কমেন্ট করে তাদের মতামত প্রকাশ করেছে।

Back to top button