প্রত্যেক মহিলাদের দেওয়া হবে ১০০০ টাকা! আগামী ১ সেপ্টেম্বর থেকে রাজ্যে শুরু লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্প!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণায় যেমন স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এর প্রকল্প চালু হয়েছিল গোটা রাজ্য জুড়ে ঠিক তেমনি এবার সমাজে পিছিয়ে পরা মেয়েদেরকে সামনের সারিতে তুলে আনার জন্য চালু হচ্ছে লক্ষী ভান্ডার প্রকল্প । আমরা দেখেছিলাম যে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এর মাধ্যমে বিনামূল্যে চিকিৎসা হচ্ছে রাজ্যের প্রতিটি মানুষ । অর্থাৎ যারা স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এর আওতায় নিজেদেরকে অন্তর্ভুক্ত করেছে । বার্ষিক ৫ লক্ষ টাকা করে স্বাস্থ্য বিমা পাবে সেই সমস্ত মানুষরা । এবার প্রতিমাসে টাকার অনুদানের ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ।। এই প্রকল্পের নাম দিলেন লক্ষী ভান্ডার প্রকল্প।

রাজ্যজুড়ে এই প্রকল্প চালু হওয়াতে মহিলারা সামনের সারিতে উঠে আসবে এমন তো অনুমান করা হচ্ছে আগে থেকেই । তার পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তথ্য অনুসারে এমনটা জানা যাচ্ছে যে গোটা রাজ্য জুড়ে মোট ১ কোটি ৬৯ লাখ মহিলারা সংযুক্ত হবে এই প্রকল্পের আওতায় সরাসরিভাবে । তার পাশাপাশি এই প্রকল্পের জন্য বছরে ১১ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে রাজ্য সরকারের তরফ থেকে । এই প্রকল্প আগামী দিনের আলো দেখাবে বলে মনে করছেন অনেকে ।

নবান্ন ঐদিন হওয়া বৈঠক থেকে জানা যাচ্ছে যে আগামী ১৬ ই আগস্ট থেকে সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত চলবে দুয়ারে সরকার কেন্দ্র সরকার ক্যাম্পে গিয়ে আবেদনপত্র জমা দিলেই নাম নথিভুক্ত করা যাবে লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পে । এবং এর জন্য বিশেষ কোনো কিছুর প্রয়োজন নেই । তার যেসব মহিলারা পাবেন ।তবে সাধারণ বা জেনারেল কাস্ট মহিলাদের জন্য ৫০০ টাকা করে প্রতিমাসে এবং অন্যান্য জাতির জন্য হাজার টাকা করে প্রতিমাসে অনুদান দেবে রাজ্য সরকার ।

৬০ বছর পর্যন্ত যে কেউ আবেদন করতে পারবেন এই প্রকল্পে। ১ সেপ্টেম্বর থেকেই টাকা দেওয়া হবে। ২৫ থেকে ৬০ বছর বয়স পর্যন্ত সব মহিলাই এই প্রকল্পের অন্তর্ভুক্ত হতে পারবেন। সারা রাজ্য জুড়ে লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পের প্রচার কার্যক্রমের জন্য নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এর জন্য প্রচারপত্র বিলি করার পাশাপাশি লোকগীতিকারদেরও পথনাটিকা ‌মারফত প্রচারকার্যে নামানোর নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

Back to top button