অভিনব এই ব্যবসা থেকে বাড়িতে বসেই প্রতি মাসে রোজগার করুন 2 লক্ষ টাকা! রইল বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- বর্তমান সময়ে জীবনযাত্রা চালানোর জন্য অর্থ উপার্জন করা অত্যন্ত প্রয়োজন। বিভিন্ন মানুষ বিভিন্ন ভাবে এই অর্থ উপার্জনের জন্য পথ অবলম্বন করে থাকেন। অনেকেই নানান ধরনের সরকারি বা বেসরকারি ক্ষেত্রে চাকরির সন্ধানে থাকেন,আবার অনেকেই এসবের পেছনে না ছুটে ব্যবসার সাহায্য নিয়ে থাকেন। তবে ব্যবসা করার বিভিন্ন দিক রয়েছে। ব্যাবসায়িক বুদ্ধি না থাকলে লাভবান হওয়া সম্ভব নয়।

তাই অবশ্যই অনেক যাচাই করে ব্যবসার প্রকৃতি বেছে নেওয়া প্রয়োজন।আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদন এর মাধ্যমে আমরা বাংলার বুকে এমন একটি ব্যবসার কথা আলোচনা করতে চলেছি যাতে প্রতিযোগিতা অনেকাংশে কম। তাই খুব সহজেই কিছু মূলধন ব্যয় করে এই ব্যবসায় আপনারা লাভবান হতে পারেন। তাহলে আসুন দেরি না করে জেনে নেওয়া যাক কিভাবে শুরু করবেন এই ব্যবসা। প্রথমত এই ব্যবসা শুরু করার জন্য কিছু জিনিস কেনার প্রয়োজন রয়েছে।

এই জিনিসের মধ্যে জায়গা থেকে শুরু করে মেশিন সব কিছুই রয়েছে। এই সম্পূর্ণ ব্যবসাটি প্লাস্টিকের উপর ভিত্তি করে তৈরি। এই ব্যবসাটি তৈরি করার জন্য একটি ভার্টিক্যাল স্ক্রু টাইপ মেশিন প্রয়োজন হবে। যার ক্যাপাসিটি হতে হবে ন্যূনতম 100 গ্রাম। অপর মেশিনটি হতে হবে হরিজনটাল মেশিন। এই মেশিনের ক্যাপাসিটি 200 গ্রাম।এই হরিজনটাল মেশিনের সাহায্যে প্লাস্টিক ব্যবহার করে টিফিন বক্স, চশমার বাক্স, নানান ধরনের প্লাস্টিকের বোতল,

চিরুনি প্রভৃতি তৈরি করা হয়। বিভিন্ন ব্যবহৃত এবং অব্যবহৃত প্লাস্টিক দিয়ে এই জিনিসগুলো সাধারণত তৈরি করা হয়ে থাকে। যার ফলস্বরুপ তৈরি করতে গেলে খুব বিশেষ অর্থের প্রয়োজন হয় না। শুধুমাত্র মেশিন এবং বিদ্যুৎ খরচ দেখা যায়। একটি নির্দিষ্ট প্যাকেজের ভিতরে এই ব্যবসাটি আপনারা শুরু করতে পারেন।স্থানীয় যে কোন এলাকার বাজারে আপনারা এই প্লাস্টিকের জিনিস গুলির যথাযোগ্য চাহিদা পেয়ে যাবেন।

তার কারণ প্লাস্টিকের বিভিন্ন বোতল থেকে শুরু করে চামচ, চিরুনি, টিফিন বক্স প্রভৃতি দৈনন্দিন ব্যবহার্য জিনিস। বিভিন্ন দোকান, বাড়ি, রেস্টুরেন্ট প্রভৃতিতে এগুলি ব্যবহার করা হয়ে থাকে। সুতরাং বাজারজাত করার ক্ষেত্রে খুব একটা সমস্যা দেখা দেবে না। এবং যদি এই ক্ষেত্রে আপনার আগে থেকেই বাজারজাত করার অভিজ্ঞতা থেকে থাকে তাহলে তা অবশ্যই অত্যন্ত কাজে আসতে চলেছে। তাই আগ্রহী থাকলে আজই দেরি না করে এই ব্যবসা শুরু করতে পারেন। তবে অবশ্যই ব্যবসাটি শুরু করার আগে মূলধন সংক্রান্ত বিষয়ে ভালোভাবে জেনে নেবেন।

Back to top button