ফর্মে এই 3 টি ভুল করলেই টাকা আসবে না লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্পের! আগে থেকে জেনে নিন! রইল ভিডিও সহ বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- রাজ্যের বুকে পুনরায় আরেকটি নতুন প্রকল্প বাস্তবায়িত হতে চলেছেন তার নাম ছিল কি ভাল প্রকল্প ইতিমধ্যেই প্রকল্পের কাজ শুরু হয়ে গেছে এবং প্রবল ছাড়া পাওয়া গেছে গোটা রাজ্য জুড়ে । নবান্ন ঐদিন হওয়া বৈঠক থেকে জানা যাচ্ছে যে আগামী ১৬ ই আগস্ট থেকে সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত চলবে দুয়ারে সরকার কেন্দ্র সরকার ক্যাম্পে গিয়ে আবেদনপত্র জমা দিলেই নাম নথিভুক্ত করা যাবে লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পে ।

এবং এর জন্য বিশেষ কোনো কিছুর প্রয়োজন নেই । তার যেসব মহিলারা পাবেন ।তবে সাধারণ বা জেনারেল কাস্ট মহিলাদের জন্য ৫০০ টাকা করে প্রতিমাসে এবং অন্যান্য জাতির জন্য হাজার টাকা করে প্রতিমাসে অনুদান দেবে রাজ্য সরকার । কিন্তু যে প্রশ্নগু-লি বারবার থেকে যায় যে কারা এই প্রকল্পের আবেদন করতে পারবে এবং কারা পারবে না তা বিস্তারিত জানাবো এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে ।

১) ৬০ বছর পর্যন্ত যে কেউ আবেদন করতে পারবেন এই প্রকল্পে। ২৫ থেকে ৬০ বছর বয়স পর্যন্ত সব মহিলাই এই প্রকল্পের অন্তর্ভুক্ত হতে পারবেন।

২) এ ক্ষেত্রে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড অবশ্যই থাকা বাঞ্ছনীয় ।

৩) প্রথমত যারা আবেদন করবে তাদেরকে স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে এই রাজ্যের ।

৪) আবেদনকারীর একটি সিঙ্গেল ব্যাংক একাউন্ট দরকার পড়বে । যার সাথে আধার কার্ড সংযুক্ত করা আছে ।

কিন্তু এই লক্ষী ভান্ডার প্রকল্প নিয়ে বেশকিছু ধরনের সমস্যা দেখা যাচ্ছে সাধারণ মানুষের মধ্যে যার ফলে তারা ভুল করে ভিন্ন কাজকর্ম করে ফেলেছে এবং তাদের লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পটি বাতিল হয়ে যাচ্ছে যে বিষয়গুলোতে অবশ্যই আপনার মাথা রাখা দরকার এবং যে সমস্ত বিষয় আপনাকে এড়িয়ে চলতে হবে সেগু-লি হল এই প্রকল্পের যে রেজিস্ট্রেশন নাম্বার দেওয়া আছে সে ক্ষেত্রে আপনি কিছু পূরণ করবে না । সেটা দুয়ারে সরকার ক্যাম্পে থাকা আধিকারিকরা পূরণ করে দেবে ।

দ্বিতীয়ত হচ্ছে স্বাস্থ্য অধিকারের জন্য যাদের কাছে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড নেই তারা এই প্রকল্পের আওতায় আসতে পারবে না । যদিও প্রথম দিকে এমনটা জানানো হয়েছিল যে আবেদন করার পর প্রকল্পের আবেদন করা যেতে পারে । কিন্তু বিভিন্ন ধরনের বিভ্রান্তি ছড়ানোর জন্য আবেদন করা যাবে না বলে জানানো হয়েছে নবান্ন থেকে ।

তৃতীয়ত যে বিষয়টি আপনার মাথায় রাখতে হবে যে আপনার পরিবারের যদি কোন মহিলা সরকারি কর্মচারী হয় বা সরকারকে ইনকাম ট্যাক্স দেয় তাহলে কিন্তু তারাই লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পের আওতায় আসতে পারবে না ।যারা আবেদন ইতিমধ্যে করে ফেলেছেন তাদের এসএমএস নিয়ে বিভ্রান্তি পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে । তবে ভাবার কোন দরকার নেই । যেহেতু বিশাল সংখ্যক আবেদন পত্র প্রকল্প সমূহের মধ্যে জমা পড়ছে তাই একটু বিলম্ব হচ্ছে ।অতি অবশ্যই আপনার রেজিস্টার মোবাইল নাম্বার এক সপ্তাহের মধ্যে দুবার সরকার বা লক্ষী ভান্ডার প্রকল্প থেকে এসএমএস পাঠানো হবে ।

Back to top button