এই পদ্ধতিতে একবার মুরগির মাংস রান্না করলে বারবার খেতে ইচ্ছে করবে! রইল ভিডিওসহ রেসিপি।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- বিভিন্ন নামিদামি রেস্তোরাঁতে যখন আমরা খাবার খেতে যাই তখনযে জিনিস রবো সবথেকে বেশি নজর যায় সেটি হল মাংস চিকেন এর উপর কিন্তু রেস্তোরাঁ থেকে ভালো উপায় কিভাবে বাড়িতে এই মাংস রান্না তৈরি করা যেতে পারে তা হয়তো অনেকের অজানা আজকের এই প্রতিবেদনটি শুধুমাত্র তাদের জন্য কারণ আজকে যে পদ্ধতি ব্যবহার করে আমরা মাংস রান্না করতে চলেছি তা হয়তো আপনার প্রতিনিয়ত মাংস রান্নার স্বাদ কে পাল্টে দিতে পারে ।আসুন দেখে নিই উপায় গু-লি ।

চিকেন তৈরি করার জন্য অবশ্য একটি বড় কড়াই এর দরকার পড়বে । তার পাশাপাশি দরকার পড়বে পেঁয়াজ টমেটো জিরা ধনে আদা রসুন ইত্যাদি সমস্ত উপকরণ গু-লি । প্রথমে মাংস টুকরোগুলোকে ভালো করে ধুয়ে নিতে হবে এবং তার মধ্যে দিতে হবে এক চামচ নুন এক চামচ লঙ্কাগুঁড়ো সামান্য পরিমাণ হলুদ এবং এক চামচ আদা বাটা জিরা বাটা ধনে বাটা এবং লঙ্কাবাটা ।

এরপর সমস্ত উপকরণ গু-লি কে হাতের সাহায্যে ভালো করে মাখাতে হবে বেশ কিছুক্ষণ ধরে । তারপর ঢাকা দিয়ে রেখে দিতে হবে কিছুক্ষণ ।অর্থাৎ আপনি খুব সহজ-সরল ভাষায় বলতেই পারেন যে মটনের টুকরোগুলোকে মেরিনেট করে রাখতে হবে কিছুক্ষণ ধরে। এরপর কড়াই মধ্যে তেল দিতে হবে এবং তার মধ্যে দিতে হবে আগে থেকে ছোট ছোট করে কেটে রাখা পেঁয়াজ গুলিকে । বেশ ভালো করে পেঁয়াজ গু-লিকে ভেজে নিতে হবে এবং তুলে রাখতে হবে অন্য একটি পাত্রে ।

সেই তেল এর মধ্যেই আপনাকে দিতে হবে সামান্য পরিমাণ পাঁচফোড়ন এবং আগে থেকে রাখা ভাজা মশলা গুঁড়ো । তারপর তার মধ্যে আদা বাটা রসুন বাটা লঙ্কা বাটা জিরে ধনে বাটা সামান্য পরিমাণ নুন এবং এক চামচ পরিমাণ হলুদ এই সমস্ত উপকরণ গুলো প্রায় ৫-৭ মিনিট ধরে ভালো করে কষিয়ে নিতে হবে । তারপর তার মধ্যে যোগ করে দিতে হবে আগে থেকে ম্যারিনেট করে রাখা মাংস টুকরো গু-লিকে ।

এরপর ঢাকা দিয়ে রেখে দিতে হবে সেটিকে কিছুক্ষণ । তাহলে মাংস থেকে জল বের হয়ে যাবে । এই জলকে কমিয়ে আনার জন্য প্রতিনিয়ত আপনাকে ফুটতে দিতে হবে মাংস টিকে । এতে মাংস সেদ্ধ হবে তার পাশাপাশি জল কমে আসবে । এই পদ্ধতিতে কিছুক্ষণের মধ্যেই তৈরি হয়ে যাবে কষা মাংস । বড় বড় রেস্তোরাঁতে দাম দিয়ে যে সমস্ত কষা মাংস আপনারা খান সেটা কম দামে তৈরি করে নিতে পারেন আপনি আপনার বাড়িতে ।

Back to top button