রাস্তায় সবার সামনে পোশাক খুলে গিয়ে বে’রিয়ে প’ড়ল ব’ক্ষযুগল! দারুন ল’জ্জায় পড়লেন অভিনেত্রী মৌনি রায়! তুমুল ভাইরাল ভিডিও।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- অভিনয় জগতের সাথে যুক্ত থাকা অভিনেতা-অভিনেত্রীদের ব্যক্তিগত জীবন সম্পর্কে জানতে আমরা বরাবরই কৌতুহল প্রকাশ করে থাকি । তার পাশাপাশি আমরা এমন তাও বলতে পারি যে কখনও কখনও তাদের সাথে এমন কিছু ধরনের ঘটনা ঘটে থাকে যেগুলো জন্য প্রস্তুত থাকে না তারা । বিভিন্ন বি-ভ্রান্তিকর প-রিস্থিতির মধ্য দিয়ে মাঝেমধ্যে তাদেরকে পেরোতে হয় । ঠিক তেমনি সম্প্রতি ঘটে গেল মৌনি রায়ের সাথে পোশাক বিভ্রান্তি যা তিনি কল্পনাও করতে পারেনি ।

মৌনী রায় জন্মগ্রহণ করেন ২8 শে সেপ্টেম্বর ১৯৮৫ সালে পশ্চিমবঙ্গের কোচ বিহারের একটি রাজবংশী পরিবারে। তার পিতামহ, শেখর চন্দ্র রায় একজন সুপরিচিত জাতীয় থিয়েটার শিল্পী ছিলেন। তার মা মুক্তি থিয়েটার শিল্পী হলেও তার বাবা অনিল রায় কোচবিহার জেলা পরিষদের অফিসের সুপারিনটেনডেন্ট । কোচবিহারের বাবুরহাটে কেন্দ্রীয় বিদ্যালয়ে ১২ তম শ্রেণি পর্যন্ত পড়তেন এবং তারপর দিল্লি যান। তিনি তার বাবা-মায়ের আস্থা নিয়ে জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়াতে গণযোগাযোগে ভর্তি হন,

কিন্তু কোর্সের মাঝে তা ছেড়ে দিয়ে চলে যান এবং মুম্বাইতে গিয়ে তার ভাগ্য চলচ্চিত্রে দেখার চেষ্টা করেন । সম্প্রতি মালদ্বীপে গিয়ে বিভিন্ন ধরনের ফটোশুটে ব্যস্ত হয়ে পড়েছিলেন অভিনেত্রী । কিন্তু এবার তার সাথে একই ঘটনা ঘটল তার জন্য প্রস্তুত ছিল না তিনি নিজে। সোমবার টি-সিরিজ সংস্থার দফতরের বাইরে পাপারাৎজিদের ক্যামেরাব-ন্দী হন মৌনি। তাঁর পরনে ছিল সাদার উপর সবুজ-হলুদ প্রিন্টেড ব্যাকলেস ড্রেস। এদিন ফ্রন্ট ওপেন ড্রেস পরলেও আর পাঁচজন সাধারণ মেয়ের মতোই মৌনির অস্বস্তি হচ্ছিল।

ফলে ক্যামেরায় পোজ দিতে গিয়ে পোশাকের উর্ধ্বাংশ বারবার টেনে ঠিক করছিলেন মৌনি। টি-সিরিজ সংস্থার দফতরের বাইরে মৌনির গাড়ি পার্কিং ছিল না। ফলে পরিস্থিতি তাঁর কাছে ক্রমশ অস্বস্তিকর হয়ে উঠতে থাকে। তিনি আ-চমকাই পাপারাৎজিদের এড়িয়ে পোশাক ধরে দৌড়াতে শুরু করেন। নাছোড়বান্দা পাপারাৎজিরাও তাঁর পিছু নেন। মৌনি গাড়িতে উঠে দরজা বন্ধ করার আগের মুহূর্তে তাঁর স্ত-নের উ-ন্মুক্ত কিছু অংশ পাপারাৎজিদের ক্যামেরায় ধরা পড়ে যায়। সম্ভবত বারবার পোশাকটি ধরে টানার ফলে মৌনির কাঁধের অংশ থেকে পোশাকটি ঢিলা হয়ে গিয়ে এই ঘটনা ঘটে। ক্রমশ ভাইরাল হচ্ছে সেই ভিডিও নেট দুনিয়াতে।

Back to top button