কবে থেকে চালু হবে রাজ্যের স্কুল-কলেজ? জানিয়ে দিলেন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু! রইল বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- বিগত প্রায় বছর দুয়েক সময় ধরে ভারতসহ বিশ্বের প্রায় বেশিরভাগ দেশেই থাবা বসিয়েছে ক-রোনা ভা-ইরাস। এই মা-রণ ভা-ইরাসের ফলে প্রা-ণ গি-য়েছে কোটি কোটি মানুষের। নারী-পুরুষ, শিশু নির্বিশেষে সকলেই অকাল মৃ-ত্যুর মুখে পতিত হয়েছেন।যার ফলস্বরূপ বিশ্বের বেশিরভাগ দেশেই লকডাউন করতে বাধ্য হয়েছে সরকার গু-লি। ভারত ও তার ব্যতিক্রম নয়। দেশের প্রায় প্রতিটি রাজ্যের বর্তমানে প্রায় লকডাউন অবস্থা চলছে।

সম্পূর্ণভাবে লকডাউন না হলেও বন্ধ হয়ে রয়েছে স্কুল-কলেজ গুলি।কারণ দেশের ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে যতটা সম্ভব সংকট থেকে বাঁচানোর চেষ্টা চালাচ্ছে সরকার।তবে ইতিমধ্যেই পড়ুয়াদের এবং অভিভাবকদের মধ্যে প্রশ্ন উঠছে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়া সত্বেও কেন স্কুল এবং কলেজ খুলছে না তা নিয়ে! অনলাইনে পড়াশোনা করতে গিয়ে বেশ অসুবিধার সম্মুখীন হয়েছেন অনেক শিক্ষার্থীরা। তাই স্বাভাবিকভাবে সকলেই চাইছেন স্কুল বা কলেজ খুলে ক্লাস শুরু হোক। সম্প্রতি এই প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু।

কবে থেকে বাংলায় স্কুল এবং কলেজ খুলতে চলেছে তাই স্পষ্ট ভাষায় জানিয়েছেন তিনি। শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্য অনুযায়ী জানা গিয়েছে খুব সম্ভবত পুজোর পরেই স্কুল কলেজগুলো খোলার সম্ভাবনা রয়েছে। ব্রাত্য বসু বলেন,”স্কুল খোলার বিষয়ে আমরা আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছি। মুখ্যমন্ত্রী আমাদের সবুজ সংকেত দেবেন। আপাতত আমরা সব রকম পরিস্থিতি পরিকাঠামো খতিয়ে দেখছি”। প্রসঙ্গত মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আগে জানিয়েছিলেন পরিস্থিতি বিচার বিশ্লেষণ করার পরেই স্কুল খোলার কথা চিন্তা ভাবনা করা হবে।

ইতিমধ্যেই রাজ্যে ভা-ইরাস আ-ক্রান্তের সংখ্যা কমলেও তা সম্পূর্ণরূপে নিরাময় হয়নি।তবে প্রায় 50 শতাংশের বেশি মানুষের ভ্যাক্সিনেশন প্রক্রিয়া সম্পন্ন সম্পন্ন হয়ে গিয়েছে। সূত্র বলছে গত 24 ঘন্টায় রাজ্যে নতুন করে ভা-ইরাসে আ-ক্রান্ত হয়েছেন 744 জন। মৃ-ত্যুর সংখ্যা 13। সুতরাং এক কথায় বলা যায় আক্রান্তের সংখ্যা কমে যাওয়ার পাশাপাশি অনেকটাই বেড়েছে সুস্থতার হার। তবুও শিশুদের ভবিষ্যতের কথা ভেবে কোনরকম ঝুঁকি নিতে চাইছে না রাজ্য সরকার।

যদিও অনলাইনে মোটামুটি যতটা সম্ভব ক্লাস করানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। সম্প্রতি স্বাস্থ্য ভবন থেকে জারি হওয়া বিজ্ঞপ্তি থেকে জানা গেছে,খুব শীঘ্রই কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়াদের টিকাকরণ শুরু হতে চলেছে।ইতিমধ্যেই এই মর্মে প্রত্যেক জেলাশাসক কে চিঠি পাঠানো হয়েছে নবান্নের তরফ থেকে।আশা করা যাচ্ছে এই টিকাকরন প্রক্রিয়া কিছুটা সম্পন্ন হলেই পুজোর পর থেকে খুলে যাবে রাজ্যের প্রত্যেকটি স্কুল এবং কলেজ তথা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলি।

Back to top button