বাড়িতে বসেই রোজগার করুন 50 হাজার টাকা! দারুণ সুযোগ দিচ্ছে SBI! জানুন বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- দেখুন এমতাবস্থায় যেমন করে হোক আমাদের সকলকে ঘুরে দাঁড়াতে হবে । তবেই দেশের অর্থনীতি হাল আবার ফিরিয়ে আনতে পারা যাবে । কিন্তু যেভাবে চাকরির বাজার এর রাস্তা আমাদের সামনে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে তাতে আগামী দিনে ব্যবসা করা ছাড়া কোনো উপায় নেই । তাই এখন থেকেই অনেকে ব্যবসায় মনোনিবেশ করেছে

তবুও প্রশ্ন আসে কি ধরনের ব্যবসা করা যেতে পারে । আমি এমন এক ধরনের ব্যবসা কথা বলতে চলেছি যেখানে আপনি বাড়িতে বসেই প্রতিমাসে ৫০ থেকে ৬০ হাজার টাকা উপার্জন করতে পারেন আপনি । নিশ্চয়ই জানতে আগ্রহী সে ব্যবসা কি তাহলে আপনাদের জানিয়ে রাখি এই মুহূর্তে আমি এটিএম ফ্র্যাঞ্চাইজিদের কথা বলতে চাই ।

সাধারণত ব্যাংক কর্তৃপক্ষ গু-লি বিভিন্ন সংস্থাকে এইটি করার টেন্ডার দিয়ে থাকে । কিন্তু এবার থেকে আপনিও এর জন্য আবেদন করতে পারবেন । কিভাবে আবেদন করবেন কি কি ডকুমেন্ট লাগবে কত টাকা ইনভেস্ট করতে হবে সমস্ত কিছু তথ্য তুলে ধরা থাকবে আজকের এই প্রতিবেদনে। এই ফ্রাঞ্চাইজিদের ব্যবসা শুরু করতে গেলে কি কি থাকা বাধ্যতামূলক এবং কি কি ডকুমেন্টস লাগবে তো আগে জেনে নেওয়া যাক

১) আপনার কাছে ৫০-৮০ স্কোয়্যার ফুটের জায়গা থাকতে হবে
দ্বিতীয় এটিএম থেকে ন্যূনতম ১০০ মিটারের দূরত্ব থাকতে হবে
এই স্পেস গ্রাউন্ড ফ্লোরে এবং গুড ভিজিবিলিটি জায়গায় হতে হবে ২৪ ঘণ্টা পাওয়ার সাপ্লাই থাকতে হবে এবং ১ কিলোওয়াট বিদ্যুতের কানেকশন লাগবে
এই এটিএম থেকে প্রতিদিন প্রায় ৩০০ ট্রানজাকশন হতে হবে
এটিএম-এর জায়গায় কংক্রিটের ছাদ থাকতে হবে ।
এই সমস্ত জিনিস গুলো থাকলে তবেই আপনি এর জন্য আবেদন করতে পারবেন এবং তার সাথে সাথে আপনাকে জমা করতে হবে

১) আইডি প্রুফ- Aadhaar Card , Pan Card , Voter Card ২.) অ্যাড্রেস প্রুফ- রেশন কার্ড, ইলেক্ট্রিসিটি বিল ৩). ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট ও পাসবুক ৪.) ফটোগ্রাফ, ই-মেল আইডি, ফোন নম্বর ৫). জিএসটি নম্বর ৬). ফাইন্যান্সিয়াল ডকুমেন্টস ।

এভাবে প্রশ্ন আছে কিভাবে আবেদন করবেন এবং কত টাকা ইনভেস্ট করতে হবে । এর জন্য সিকিউরিটি মানি জন্য তিন লক্ষ টাকা এবং আরো সিকিউরিটি ডিপোজিট এর জন্য দু লক্ষ টাকা অর্থাৎ সর্বমোট ৫ লক্ষ টাকা আপনাকে প্রাথমিকভাবে ইনভেস্ট করতে হবে । যার অর্থ ফেরত যোগ্য । কিন্তু প্রশ্ন আছে কত টাকা আপনি ইনকাম করতে পারবেন এর জন্য প্রতি মাসে প্রায় ৪০-৪৫ হাজার টাকা আপনি ইনকাম করতে পারবেন এর মাধ্যমে ।

কারণ প্রতি ট্রানজেকশন পিছু আপনি ৮ টাকা এবং নন ক্যাশ ট্রানজেকশন পিছু ২ টাকা করে পাবেন । বছরে রিটার্ন অন ইনভেস্টমেন্ট ৩৩-৫০ শতাংশ পাওয়া যায় ৷ যদি এটিএম-এর মাধ্যমে প্রতিদিন ২৫০টি ট্রানজাকশন হয় তার মধ্যে ৬৫ শতাংশ ক্যাশ ট্রানজাকশন ও ৩৫ শতাংশ নন-ক্যাশ ট্রানজাকশন হয় তাহলে মাসে আয় প্রায় ৪৫ হাজার টাকা আয় করতে পারবেন ৷ দিনে ৫০০ ট্রানজাকশন হলে প্রায় ৮৮-৯০ হাজার কমিশন মিলবে ৷

এসবিআই এটিএম-এর ফ্র্যাঞ্চাইজি বেশ কিছু সংস্থা দিয়ে থাকে ৷ অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে গিয়ে অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন ৷ দেশের বেশির ভাগ এটিএম লাগানোর কন্ট্র্যাক্ট দেওয়া হয়ে থাকে Tata Indicash, Muthoot ATM ও India One ATM ৷ এই সমস্ত সংস্থার ওয়েবসাইটে অনলাইনে লগইন করে এটিএমের জন্য আবেদন করতে পারবেন ৷

Back to top button