ডিম নিয়ে আসলো খারাপ খবর, এবার চিন্তায় সাধারণ মানুষ!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- করোনা কালে নিজের শরীরের ইমিউনিটি পাওয়ার বা রো-গ প্র-তিরো-ধ ক্ষ-মতা বাড়িয়ে তোলার জন্য ডাক্তারবাবুরা সর্বদা প্রোটিনযুক্ত খাবার বেশি মাত্রায় গ্রহণ করা পরামর্শ দিয়ে থাকেন । সেই অর্থে মানুষ মাছ-মাংসের প্রতি ভরসা রেখেছিলো । কিন্তু এমন অনেক পরিবার রয়েছে যাদের পক্ষে প্রতিনিয়ত মাছ-মাংস খাওয়া সম্ভব নয় ।কারণ তাদের আর্থিক অবস্থা ততটা ভাল নয় তাই তারা ভরসা রেখেছিলো ডিমের প্রতি । যেহেতু ডিম ইত্যাদি প্রোটিনযুক্ত খাবার । তাই ডিম খেলে শরীরের ইমিউনিটি পাওয়ার বাড়বে এমনটা বলা যেতেই পারে।

কিন্তু এবার তাদের মাথায় পরলো চিন্তার হাত ।কারণ মুরগি খাসির মাংস মাছ এর পাশাপাশি এবার ক্রমবর্ধমান ডিমের দাম । বেশ কিছুদিন আগে একটি খবর প্রকাশিত হয়েছিল যেখানে জানানো হয়েছিল যে বাজারে ছড়িয়ে পড়ছে নকল ডিম । সেই অর্থের চাহিদা প্রচুর পরিমাণে কমে গিয়েছিল । প্রচুর পরিমাণে ডিম নষ্ট হচ্ছিল । কিন্তু যেন সময় থেকে ডাক্তারবাবুরা পরামর্শ দিয়েছেন অধিক প্রোটিনযুক্ত খাবার খেতে তখন থেকে মাছ-মাংসের পাশাপাশি বেড়েছে এর চাহিদা ।

এতটাই পরিমাণে চাহিদা বেড়ে গেছে যে যোগান দেওয়া অসম্ভব হয়ে উঠছে । ব্যবসায়ীরা জানাচ্ছেন যে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের ৫৫ % ডিম সরবরাহ উত্তর প্রদেশ বিহার থেকে । কিন্তু মানুষের এত চাহিদা বেড়ে গেছে যে তারা সেই চাহিদা মেটাতে ব্যর্থ । তার পাশাপাশি দেশজুড়ে ল-কডা-উন থাকার ফলে সমস্ত কাজ এখন বন্ধ । তাই আগামী দিনেও বাড়বে ডিমের দাম । এমনটা অনুমান করা যাচ্ছে । রীতিমতো ডিমের বাজার আকাশ ছোঁয়া ।

কখনো কখনো কোন কোন বাজারে একটি ডিমের দাম ৬ টাকা আবার কখনো কোন জায়গায় সাড়ে ৬ টাকা । কোন জায়গায় আবার ৭ টাকা অ-বাক হবেন আপনি এটা ভেবে কোন কোন বাজারে আবার একপিস ডিমের দাম ৮ টাকা । আপনি ভাবুন যে এক পিস ডিম খেতে যদি আপনাকে পকেট থেকে আর টাকা খরচ করতে হয় তাহলে আপনার দু-শ্চিন্তা-র কারণ খুব স্বাভাবিক । সাধারণ মধ্যবিত্ত পরিবারের পক্ষে অবশ্যই চিন্তার অন্যতম কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে এই মুহূর্তে । তবে কবে দাম আবার পুনরায় স্বাভাবিক হবে তা এই মুহূর্তে বলা অসম্ভব ।

Back to top button