মাঝ রাস্তায় গাড়ি থামিয়ে দাঁড়ালেন অভিনেত্রী শ্রাবন্তী, চ-র’ম রে-গে গেলেন তিনি, ভাইরাল ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- ফের আরো একবার পু-লি-শের সাথে বচ-সায় জ-ড়িয়ে প-ড়লেন অভিনেত্রী শ্রাবন্তী । অভিনেত্রী পায়েল সরকার এর মত আ-চ-মকা হঠাৎ করে অভিনয় জগৎ থেকে রাজনীতির দুনিয়ায় এসে পড়লেন আর এক অভিনেত্রী। দুপুর থেকেই বেশ কয়েক দফা জ-ল্প-নার পর সম্প্রতি বিজেপির মিডিয়া সেন্টারে কৈলাস বিজয়বর্গীয়, বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের উপস্থিতিতেই পদ্মফুল শিবিরে পা রাখলেন অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। এই যোগদানের পর থেকেই সংবাদ শিরোনামে চলে এসেছেন অভিনেত্রী।

সম্প্রতি বেশ কয়েকদিন ধরে তৃতীয় স্বামী রোশন সিংয়ের সঙ্গে বি-বাহ বি-চ্ছেদের জ-ল্পনা নিয়ে নেট নাগরিকদের আকর্ষণের প্রধান কেন্দ্রবিন্দুতে ছিলেন তিনি। কিন্তু এইবার রাজনীতির পথে পা বাড়ানোয় তবে কি নতুন জীবন শুরু করতে চাইছেন শ্রাবন্তী! বিজেপিতে যোগ দেবার পর ইতিমধ্যে তিনি প্রার্থী হয়ে গেছেন বেহালা পশ্চিম বিধানসভা কেন্দ্র থেকে । তাই প্রতিদিনই থাকছে প্রচার এবং অত্যন্ত নিষ্ঠা ও দায়িত্বের সাথে তিনি তার প্রচার সারছেন এক এক করে । কখনো কখনো আবার সাথে নিচ্ছেন তার ছেলে ও হবু বউমাকেও ।

তবে এবার ঘটে গেল এক অন্য ঘটনা এবং এই ঘটনার সাক্ষী এর আগে শ্রাবন্তী যে কোন কালে ছিল না সেটি নিশ্চিত। আমরা জানি যে প্রচার করতে গেলে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ধরনের বা-ধার সম্মু-খীন হ-তে হ-য় । সেই সমস্ত বা-ধা-গুলোকে অতিক্রম করে নিজেদের প্রচার চালিয়ে যেতে হয় এটা সমস্ত রাজনৈতিক দলের একটা সাধারণ নীতি । কিন্তু সম্প্রতি যে ঘটনাটি দেখা গেছে সেটি হয়তো বড় কোন কারণের জন্যই ঘটেছে এমনটা মনে করছেন অনেকে । কারণ শ্রাবন্তীর মতন অভিনেত্রী কখনো পু-লিশের সা-থে ঝ-গ-ড়ায় জ-ড়িয়ে প-ড়তে পারেনা ।

মূলত বিজেপির সমর্থনে বেহালা পশ্চিম থেকে প্রার্থী হয়েছেন শ্রাবন্তী চ্যাটার্জী । সেই বেহালা পশ্চিমের প্রচারে আসার কথা ছিল অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তীর কিন্তু প্রশাসনিক তরফ থেকে কোনো রকম পার্মিশন পাওয়া যায়নি বলে জানা যাচ্ছে এই মুহূর্তে । তাই মে-জাজ হা-রা-লেন শ্রাবন্তী চ্যাটার্জী প্র-বল উ-ত্তে-জনার সৃষ্টি হয় সেই মুহূর্তে বেহালা পশ্চিম বিধানসভা কেন্দ্র। কি কারণে পুলিশ পারমিশন দিচ্ছে না তা জানতে চেয়ে বিক্ষোভ দেখান শ্রাবন্তী ও তার দলীয় কর্মীরা । এমনকি তিনি সংবাদমাধ্যমকে বলেন যে তৃণমূল যে এভাবে নোংরা খেলা খেলছে তাতে আমাদেরকে আটকানো যাবে না । মানুষের ভালোবাসা আমাদেরকে জেতাবে । এই মুহূর্তে রাজ্যে রাজনীতি সবকিছু মিলিয়ে উ-ত্তপ্ত ।

Back to top button