রাজ্যে রেকর্ড ছাড়িয়ে গেল পেট্রোলের দাম! 100 -র গণ্ডি পার করলো ডিজেল! মাথায় হাত সাধারন নাগরিকদের!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- দেখুন একথা অস্বীকার করার কোন উপায় নেই যে বর্তমানে যে হারে বেড়ে চলেছে পেট্রোল এবং ডিজেলের দাম তাতে রীতিমতো গভীর চিন্তা সৃষ্টি হয়েছে সাধারণ মধ্যবিত্ত মানুষের কপালে। দিন আনা দিন খাওয়া মানুষগুলো যারা কাজের সূত্রে গাড়ি ব্যবহার করে এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় যাতায়াত করে।

তাদের ক্ষেত্রে রীতিমতো অসম্ভব হয়ে উঠেছে এভাবে দিন যাপন করা সরকারের তরফ থেকে কোনো রকম কোনো সুযোগ-সুবিধা পাওয়া যাচ্ছে না বরং প্রতিনিয়ত বেড়েই চলেছে এই পেট্রোল এবং ডিজেলের দাম। যার ফলে মানুষ ক্ষোভে ফুঁসছে গোটা দেশজুড়ে ফের আরও একবার বাড়ল দাম। বিশ্ব বাজারে ক্রমশ বাড়ছে দাম। ব্রেন্টের অপরিশোধিত তেলের দাম সাত বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ ব্যারেল পিছু ৮৪.৬১ ডলারে পৌঁছে গিয়েছে সাত বছরের মধ্যে প্রথমবার।

একমাস আগে এল ব্যারেল তেলের দাম ছিল ৭৩.৫১ ডলার।যেহেতু পেট্রোল এবং ডিজেলের দাম নির্ভর করে আন্তর্জাতিক বাজারের উপর তাই আগামী দিনে আরও বেশি অতিরিক্ত মাত্রায় পেট্রোল এবং ডিজেলের দাম বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা বিশেষজ্ঞদের। ছবির এই আমেজে পরপর চার দিন লিটার পিছু ৩৫ পয়সা করে বাড়ানো হলো পেট্রোল এবং ডিজেলের দাম।

১২ এবং ১৩ ই অক্টোবর দাম কোনরকম বাড়ানো না হলে তারপর ৩৫ পয়সা করে বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে পেট্রোল এবং ডিজেলের দাম। যার জন্য মুম্বাই এবং হায়দ্রাবাদের রেকর্ড হারে পৌঁছেছে এর দাম।দিল্লিতে লিটার পিছু পেট্রোলের দাম ১০৫.৮৪ টাকা এবং ডিজেলের দাম হয়েছে ৯৪ টাকা ৫৭ পয়সা । মুম্বইয়ে তা পৌঁছে গিয়েছে লিটার পিছু ১১১.৭৭ টাকায়।মুম্বইতে ডিজেলের দামও ১০০ টাকা ছাড়িয়ে গিয়েছে।

রবিবার কলকাতাতেও বেড়েছে পেট্রোল ও ডিজেলের দাম। বর্ধিত দাম কার্যকর হওয়াতে পেট্রোল এবং ডিজেলে লিটার পিছু যথাক্রমে ১০৬.৪৩ টাকা এবং ৯৭.৬৮ টাকা। সরকারের তরফ থেকে এমনটা দাবি জানানো হয়েছিল যে যদি পেট্রোল এবং ডিজেলের জিএসপির আওতায় আনা যায় তাহলে অনেকে দাম কম হবে।

Back to top button