নদীর ধারে বড় রাজ খরগোশ ডিম দিতেই পিছন থেকে প্রতিটা ডিম নিয়ে পা’লিয়ে গেলেন যুবতী, ভাইরাল ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- আমরা দেখেছি যে যে সমস্ত জী-ব জ-ন্তু বা প-শু পাখিরা বনে জ-ঙ্গলে বসবাস করে তাদের জীবন বাকি সাধারণ পাঁচটা প-শু পাখির মতন হয়না ।কারণ প্রতিনিয়ত তাদেরকে সং-গ্রাম করে চলতে হয় । জীবনের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার জন্য অপরকে শি-কার করে বেঁচে থাকতে হয়। খাদ্য পিরামিড এর চিত্র খুব স্বাভাবিক এবং খুব সহজ ও সরল। কিন্তু কখনো কখনো সেই সমস্ত জ-ঙ্গলের মানুষের আধিপত্য চলে আসার জন্য ব্যধাট ঘটে খাদ্য চিত্র এ। এ ঘটনা প্রমাণ আমরা বহুবার পেয়েছি ।

আমাদের দেশে বা পৃথিবীতে এমন বহু প্রজাতির মানুষ রয়েছে যারা পিছিয়ে পড়েছে সভ্যতার অগ্রগতি থেকে সভ্যতার ছোঁয়া আধুনিকতার ছোঁয়া তাদের জীবনকে আলোকিত করতে পারেনি কিন্তু তারা নিজেদের জীবনকে অতিবাহিত করার জন্য নিজেদের মত নাকি সমাজত-ন্ত্র করে তোলে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ব-ন জ-ঙ্গ-লের ধারে বিভিন্ন আদিবাসী সম্প্রদায়ের মানুষজন দেরকে দেখা যায় তারা এই ধরনের জীবনে অভ্যস্ত হয়ে ওঠে নিজেদেরকে বড় করে তুলতে ।

সম্প্রতি তেমনই একটি চিত্র দেখা গেল এই ভিডিওর মাধ্যমে। আমরা জানি যে তারা নিজেদের জীবন অতিবাহিত করার জন্য জঙ্গল থেকে প্রাপ্ত বিভিন্ন ফলমূল শাকসবজি এমনকি প-শুপাখিদের কে স্বীকার করে এবং সেগু-লি পরবর্তী ক্ষেত্রে রান্না করে তারা নিজেদের জীবনকে অতিবাহিত করে ।কিন্তু এই চিত্র একটু আলাদা ধরনের এখানে এক মানবিকতা চিত্র কিছুটা হলেও ফুটে উঠেছে ।

ভিডিও দেখা যাচ্ছে গ্রামের এক মহিলা শাক সবজি বা অন্যকিছু সন্ধানে জঙ্গলে পাড়ি দেয়। কিন্তু হঠাৎ করেই সে দেখতে পাই কিছু খরগোশের বাচ্চাকে এবং তারপর তিনি লো-ভ সা-মলাতে পারেননি। তিনি তার বাস্কেট এর মধ্যে সে খরগোশের বাচ্চা গুলোকে তুলে নেয়। তার পাশাপাশি আশেপাশে ছ-ড়িয়ে থা-কে অনেকগুলো ডিম । সেটি গুলি আসলে রাজ খরগোশের ডিম । খরগোশের বাচ্চা নেওয়ার সাথে সাথে সেই ডিমগুলো নিয়ে সেখান থেকে পালিয়ে যায় । এখানে দুই ধরনের চিত্র ফুটে উঠেছে এক মানবিকতার আর। অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার ।

Back to top button