নিজের বাড়িতেই দুর্দান্ত সুরে গান গেয়ে তাক লাগালেন রানু মন্ডল, প্রবল গতিতে ভাইরাল ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- ভাইরাল রানু মন্ডলের ভিডিও আবার । সোশ্যাল মিডিয়ার গুনে প্রকাশ্যে আসার রানু মন্ডলের কথা প্রায় সকলেরই মনে রয়েছে। খুব সহজ ছিল না রানাঘাট স্টেশন থেকে বলিউডের সংগীতশিল্পীর যাত্রাপথ টি। কিন্তু তাতেও তিনি অসাধারণ সাফল্য অর্জন করেছেন। হয়তো নিজের অহংকারবশত আজকে তিনি অনেকটাই অন্ধকারে হারিয়ে গিয়েছেন, তবে তার গাওয়া গানগুলি কিন্তু এখনো অবধি কিন্তু দর্শকদের মন জয় করে রেখেছে। মেয়ের দ্বারা পরিতক্ত রানু মন্ডল স্টেশনে দিন কাটালেও নিজের সংগীতের মাধ্যমে পরিচিতি লাভ করেন।

অতীন্দ্র চক্রবর্তী নামক এক ২৪ বছর বয়সী ইঞ্জিনিয়ার রানুর গানকে রেকর্ড করে সোশ্যাল মিডিয়ায় মানুষের সামনে উন্মুক্ত করে দেন। তার গানের গলা মুগ্ধতা লাভ করতে করতে বলিউড অব্দি পৌঁছে যায়।তারপর হিমেশের পরিচালনায় রানুর গলায় রেকর্ড করা নতুন গান সবার কাছে জনপ্রিয় হয়ে ওঠে।গানটি প্রকাশ্যে আসার পর অনেক অনুষ্ঠানেই শুনতে পাওয়া যায় প্রতিনিয়ত।

নিজের অস্বাভাবিক মন্তব্যের জন্য এরপর রানু মন্ডল বিতর্কেও জড়ান। ঠিক যতটা সাহায্য তাকে করেছিলেন অতীন্দ্র চক্রবর্তী ঠিক ততটাই সাহায্যের হাত তিনি পেয়েছেন হিমেশ রেশমিয়ার কাছ থেকে।তেরি মেরি পর হিমেশের সাথে আরো একটি গান রেকর্ড করছেন তিনি। তবে রানু মন্ডল যতই ভাইরাল হোক না কেন সম্প্রতি তারা অবস্থা একদম শোচনীয় এই দীর্ঘ লকডাউনে তার অবস্থা আরো কঠিন হয়ে উঠেছিল ।

এমনকি ত্রান-সাহায্য আর্জি জানিয়েছিলেন তিনি । তাই বিভিন্ন ইউটিউবার তাদের ব্লক চ্যানেলের সমৃদ্ধি ঘটানোর জন্য রানু মন্ডল এর সাথে দেখা করতে যাচ্ছিলেন । সাথে অবশ্যই নিয়েছিলেন কিছু খাবার দাবার বা টাকা-পয়সা ঠিক তেমনই এক ইউটিউবার বা ব্লগার পৌঁছেছিলেন রানু মণ্ডলের বাড়িতে । সেখানে তার সাথে গল্পগুজব করার সাথে সাথে তার জীবনের কাহিনী জানতে শুরু করেন । এবং সেই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে রানু মন্ডল কে পুরনো জনপ্রিয় গান এক পেয়ার কা নাগমা হে গানটি গাইতে । ইতিমধ্যে তার ভিডিও দেখে ফেলেছে প্রায় ৩ মিলিয়ন মানুষ জন । এসেছে প্রচুর মন্তব্য ।

Back to top button