অভিনেতা ফিরদৌসের স্ত্রীকে চেনেন, দেখতে কোনো অভিনেত্রীর থেকে কম কিছু নন তিনি, রইলো তার ছবি!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- আমাদের এই বাংলায় ইন্ডাস্ট্রিতে এমন বেশ কিছু অভিনেতা-অভিনেত্রীরা অভিনয় করে গেছে যাদের জন্মস্থান হয়ত ভারতবর্ষের না । বাংলাদেশ থেকে এমন বহু অভিনেতা এবং অভিনেত্রী রয়েছে যারা বাংলা ইন্ডাস্ট্রিতে কাজ করে গেছে বা এখনও করে চলেছে । তার মধ্যে অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেতা হলেন ফিরদৌস আহমেদ । বিংশ দশকের চলচ্চিত্র জগতে ছিল এই অভিনেতা খুব অল্প সময়ের মধ্যে জয় করে নিয়েছিলেন অভিনয় দক্ষতা দিয়ে দর্শকদের মন।

ফেরদৌস আহমেদ ৭ জুন ১৯৭৪ সালে জন্ম গ্রহণ করে বিংশ শতাব্দীর শেষ দশকে আবির্ভূত একজন জনপ্রিয় বাংলাদেশী চলচ্চিত্র অভিনেতা। তার অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র বুকের ভিতর আগুন, এটির পরিচালক ছিলেন ছটকু আহমেদ। তার মুক্তিপ্রাপ্ত প্রথম চলচ্চিত্র গাজী মাজহারুল আনোয়ারের পরিচালনায় পৃথিবী আমারে চায় না। পাশাপাশি তিনি কলকাতার চলচ্চিত্রেও অভিনয় করছেন। মিট্টি নামে ২০০১ সালে একটি বলিউডের চলচ্চিত্রে তিনি অভিনয় করেছেন। ১৯৯৮ সালে তিনি চলচ্চিত্রকার বাসু চ্যাটার্জি পরিচালিত হঠাৎ বৃষ্টি ছবিতে অভিনয় করে ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেন।

অভিনয় জগতে আসার আগে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গণমাধ্যম এবং সাংবাদিকতা নিয়ে পড়াশোনা করেছেন । চলচ্চিত্রে অভিনয়ের পাশপাশি তিনি মডেলিং, টিভি উপস্থাপনা ও টেলিভিশন নাটকে অভিনয় করেছেন। বাংলাদেশের চলচ্চিত্র শিল্পে তার অনবদ্য অভিনয়ের স্বীকৃতিস্বরূপ বাংলাদেশ সরকার তাকে চারবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র অভিনেতার পুরস্কারে ভূষিত করে। এগুলো হচ্ছে হঠাৎ বৃষ্টি , গঙ্গাযাত্রা, কুসুম কুসুম প্রেম , ও এক কাপ চা ।

এই অভিনেতা ২০০৪ সালে বৈমানিক তানিয়া সাথে বিয়ে করেন এবং তাঁর দুইটি কন্যাসন্তান রয়েছে । তার স্ত্রী তাকে বন্ধুর মতন সমর্থন করে চলে প্রতিনিয়ত । একসময় অভিনয় জগতের প্রতি মন উঠিয়েছিল অভিনেতার । তখন এই অভিনেতা স্ত্রী তাকে বলেছিলেন যে চাইলে তুমি অভিনয় ছেড়ে দিতে পারো । আমি তোমার সাথে রয়েছি । তার স্ত্রী বাংলাদেশের বিমানের একজন পাইলট । তাই বেশিরভাগ সময়ে তাকে অন্য দেশে থাকতে হয় । ঠিক তেমনি বিশ্বাস সাথে এত বছর ধরে টিকে গেছে তাদের সম্পর্ক।

Back to top button