আর নয় অভিনয়! এবার মুখ্যমন্ত্রীর অনুপ্রেরণায় চায়ের ব্যবসা করে কোটিপতি হতে চান ঋত্বিক চক্রবর্তী!

নিজস্ব প্রতিবেদন:সম্প্রতি রাজ্যের বেকার যুবক-যুবতীদের উদ্দেশ্যে একটি বিশেষ বার্তা দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দিন কয়েক আগেই মেদিনীপুরের খড়্গপুরের একটি কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। এখানেই বক্তব্য রাখতে গিয়ে রাজ্যের বেকার যুবক-যুবতীদের উদ্দেশ্যে মমতা জানান, “পুজোয় হাজার টাকা জোগাড় করে একটা কেটলি কিনুন, আর সঙ্গে নিন মাটির ভাড়। কিছু বিস্কুটও রাখুন।

ধীরে ধীরে বাড়বে। প্রথম সপ্তাহে বিস্কুট নিলেন। মাকে পরের সপ্তাহে বললেন ঘুগনি তৈরি করে দাও। সেটাও নিয়ে যান। সবই কিন্তু বিক্রি হয়ে যাবে। তারপরের সপ্তাহে তেলে ভাজা করলেন।। পাশাপাশি একটা কৌটোয় ঝাল মুড়ি নিয়ে নিন। তাতে বাদাম আর ছোলা ফেলে দিন। দেখবেন একে একে সকলে খেতে চাইবে। আপনারা বিক্রি করে শেষ করতে পারবেন না”।

এখানেই থামেননি মুখ্যমন্ত্রী। সঙ্গে আরো যোগ করে বলেন, “দেখুন শালপাতার মাঝখানে ফুটো করে একটা কাঠি ঢুকিয়ে দিন। ঠোঙ্গা তৈরি হয়ে যাবে। তার মধ্যেই ঘুগনি, ঝালমুড়ি বিক্রি করবেন। ধরুন একটা টেবিল আর একটা টুল নিয়ে বসলেন। সামনে পুজো আসছে। লোককে দিয়ে কুলিয়ে উঠতে পারবেন না। আজকাল এত বেশি পরিমাণে বিক্রি রয়েছে”। যদিও মুখ্যমন্ত্রীর এই বক্তব্যটি ভাইরাল হওয়ার পরে কম বিতর্ক হয়নি।

তবে এবারে তৃণমূল নেত্রীর এই বক্তব্যকেই কাজে লাগাতে চলেছেন বাংলা চলচ্চিত্র জগতের জনপ্রিয় অভিনেতা ঋত্বিক চক্রবর্তী। এই সময় অন্যান্য অভিনেতাদের হাতে কাজ থাকলেও তার হাতে কিন্তু কোন কাজ নেই বলেই জানিয়েছেন অভিনেতা।। তাই এই সময়ে মুখ্যমন্ত্রীর কথা অনুযায়ী সমস্ত ব্যবসার প্ল্যানিং সেরে ফেলেছেন অভিনেতা। যদিও পুরো ব্যাপারটাই ঘটেছে মজার ছলে।

সম্প্রতি একটি ভিডিও নিজের সোশ্যাল মিডিয়া প্রোফাইল থেকে শেয়ার করেছেন অভিনেতা ঋত্বিক চক্রবর্তী। সেখানে দেখা যাচ্ছে, অভিনেতা হাতে একটা পুতুল নিয়েছেন আর তাঁকে দিয়েই বলাচ্ছেন সব কথা। পুতুল অভিনেতার উদ্দেশ্যে বলছে, “আমার একটা বিজনেস প্রপোজাল আছে বড়দা। একটা চায়ের দোকান দেবো। চা টা সার্ভ করবো শামূকের খোলে। শুনে চমকে উঠে অভিনেতা জানায় শামুক! অন্যদিকে থেকে হাত পুতুল ঘাড় নেড়ে তাতে সম্মতি জানায়।

বলে, সাথে থাকবে মুড়ি, বাদাম, ঘুগনি আর পিঁপড়ের ডিমের ওমলেট। কচুরিপানার পাতায় সার্ভ করা হবে।” এখানেই শেষ নয়, আর দুটি এক্সক্লুসিভ প্রোডাক্ট আছে বলেও জানিয়েজন ওই হাতপুতুল। আর কী কী ঋত্বিক জিজ্ঞেস করায় জানায়, “ওসবের সাথে থাকবে পানী ফলের দই আর পদ্ম পাতার জাঙ্গিয়া। চলবে বড়দা! তুমি আসবে তো?” অভিনেতাকে জিজ্ঞেস করায় তৎক্ষণাৎ অভিনেতার স্পষ্ট জবাব ‘না’। এদিন অভিনেতার পোস্ট করা এমন ভিডিও দেখে কার্যত হেঁসে লুটোপুটি খাচ্ছেন নেট-নাগরিকরা।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Ritwick (@ritwickchak_)

যদিও এই প্রথমবার নয়,এর আগেও টাক মাথায় চুলের ম্যাজিক দেখিয়েছিলেন অভিনেতা। চুলের মধ্যে দিয়েই পিয়ানোর সুর তুলেছিলেন ঋত্বিক। তার কিছুদিন পরেই অবশ্য বিশ্বকর্মা পুজোর দিন আরো এক ভিডিও শেয়ার করেছিলেন তিনি। যেখানে দেখা গিয়েছিল, ঘুমিয়ে রয়েছেন ঋত্বিক চক্রবর্তী। হঠাৎ তাঁর বুকের উপর বাজনা বাজতে লাগল। তিনি উঠলেন চমকে। দেখলেন ছেলে মনের আনন্দে বাজনা বাজাচ্ছেন ঘুমন্ত বাবার বুকে।

কিছুক্ষণ হকচকিয়ে রইলেন বাবা ছেলে কাণ্ড দেখে। ভিডিয়োটি শেয়ার করে অভিনেতা ক্যাপশান দিয়েছেন, ‘এক বিশ্বকর্মায় দুই নিষ্কর্মা’। সে দুবারও অভিনেতার এমন রসিকতায় আপ্লুত হয়েছিলেন সকলে। এই মুহূর্তে হাতে কাজ না থাকলেও বেশ কিছুদিন আগে ‘অনুব্রত ভাল আছো’, ‘এক ফালি রোদ’, ‘হ্যাপি পিল মোমেন্ট’-এর মতো একগুচ্ছ ডিজিটাল ছবি মুক্তি পেয়েছে ঋত্বিকের। অপরাজিতার সঙ্গে এক ফালি রোদ দর্শকদের প্রশংসা পেয়েছে। একটি ছবিতেই কিন্তু ঋত্বিকের সহজ আর সাবলীল অভিনয় দর্শকদের ভীষণভাবে মন জয় করে নিয়েছে।

Back to top button