স্যার মেয়েটিকে বললেন তোমার কি বিয়ে হয়েছে? এরপর ক্লারুমে যা হল দেখলে আপনি অবাক হবেন!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- আমরা আমাদের প্রিয়জনদের কে সব সময় কাছে আটকে রাখতে চাই । মন চাই যেন সারাজীবন তারা থেকে যাক আমাদের পাশে । কিন্তু তেমনটা সম্ভব হয়ে ওঠে না । যে জিনিসের সৃষ্টি আছে তার ধ্বং-স আছে এবং সেই তালিকায় পড়ে যায় বিশ্বের সবথেকে অন্যতম জীব মানুষও । সংসারের এই কঠিন নিয়মের বেড়া-জা-লে পড়ে আমরা অনেকেই দুঃ-খিত হয় ব্য-থা পায় । কিন্তু নিয়মকে যে যত তাড়াতাড়ি অর্থাৎ বাস্তবকে যে যত তাড়াতাড়ি মেনে নিতে পারবে ততই তার পক্ষে মঙ্গল।

বাবা-মা ভাই-বোন বন্ধু-বান্ধবী সবাইকে নিয়ে তৈরি আমাদের আশেপাশের এই সমাজ । সেই সমাজে বসবাস করে অনেক আশা ভরসা ভালোবাসা রা-গ অ-ভিমান কা-ন্না ইত্যাদি । কিন্তু মেয়ের পক্ষে ব্যাপারটা কোথাও যেন একটু হলেও আলাদা । আলাদা এই কারণে কারণ একই জীবনে দুবার কখনো কখনো হয়তো তারও বেশি মানুষের সাথে সম্পর্ক রাখতে হয় । তাদেরকে নিজের ঘর-বাড়ি ছেড়ে পাড়ি দিতে হয় অন্য ঘরে।

ঠিক সেই রকম একটি ভিডিও ইউটিউবে প্রকাশিত হয়েছে সেখানে এক শিক্ষক একটি ক্লাসের যুবতীকে বলেন যে তুমি কি বিবাহিত? তার তরে সেই যুবতী বলে হ্যাঁ আমি বিবাহিত এবং আমার একটি ছেলে রয়েছে । তখন শিক্ষক বলেন আজকে তাহলে তুমি ক্লাস নেবে । এই নাও চোখ এবং ডাস্টার।তারপর সে শিক্ষক ওই যুবতীকে বলেন যে তুমি তোমার প্রিয় ১০ জনের নাম লেখ সেই বোর্ডে । যুবতী তার কথামতো ১০ জনের নাম লিখল । তারপর শিক্ষক তাকে বলেন যে এর থেকে পাঁচ জনের নাম মুছে দিন । সেই যুবতী অনায়াসে ৫ বান্ধবী ও বন্ধুর নাম মুছে দিলেন । কিন্তু এরপর এর ঘটনা টা ক্রমশ কঠিন হতে শুরু করল।

এরপর সেই শিক্ষক যুবতীকে বলে আরও তিনজনের নাম মুছে দাও । তখন সে তার বাবা-মা এবং বেস্ট ফ্রেন্ডের নাম মুছে দেয় । পরবর্তী ক্ষেত্রে যখন শিক্ষক তাকে বলেন যে এই দুজনের মধ্যে অর্থাৎ স্বামী এবং সন্তানের মধ্যে একজনকে মুছে দাও তখন সিদ্ধান্ত নিতে পারেনা । টা-ন-টান উ-ত্তেজনা থাকে ক্লাসের মধ্যে । এবং শেষমেষ দেখা যায় সেই যুবতী পুত্র সন্তানের নাম মুছে দেয় । তার কারণ যদিও তিনি ব্যাখ্যা করেছেন খুব সুন্দর ভাবে । তার পাশাপাশি এই ভিডিও এটা প্রমাণ চেষ্টা করে যে আমাদের আশেপাশে যত মানুষ বেড়ে উঠুক না কেন প্রিয় মানুষের সংখ্যা কখনো পরিবর্তন হয়না সেটা অপরিবর্তিত থাকে।

Back to top button