রান্নার হাঁড়িতে খুব সহজ এই ঘরোয়া উপায়ে বানিয়ে ফেলুন দারুণ টেস্টি ভাপা পিঠা, একবার খেলে বারবার খাবেন!

নিজস্ব প্রতিবেদন:- শীতকালের একটি অত্যন্ত উল্লেখযোগ্য খাবার হলো ভাপা পিঠে। অনেকেই কিন্তু পিঠে খেতে খুবই পছন্দ করেন তবে বানাতে পারেন না। আগেকার দিনে মা দিদিমাদের রাজত্বে গ্রামাঞ্চলে কিন্তু এই পিঠে বানানো খুব বেশি রকমের প্রচলিত ছিল। বর্তমানে বিভিন্ন শহরে রান্নার ভিড়ে অনেক জিনিসই হারিয়ে গিয়েছে।

আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা আপনাদের জন্য শেয়ার করে নিতে চলেছি ভাপা পিঠের রেসিপি। অনেকেই মনে করে থাকেন যে পিঠে বানানো অত্যন্ত কঠিন কাজ। তাদের উদ্দেশ্যে বলবো আপনারা কিন্তু খুব সহজেই বাড়িতে এই পিঠে তৈরি করতে পারেন। বিশদে জানতে আমাদের এই প্রতিবেদনটি অবশ্যই শেষ পর্যন্ত পড়ুন।

ভাপা পিঠা তৈরির পদ্ধতি:

১) পিঠে বানানোর জন্য আপনাদের প্রথমেই একটি বড় পাত্রের মধ্যে নিয়ে নিতে হবে তিন কাপ পরিমাণ আতপ চালের গুঁড়ো। এছাড়াও আপনাদের নিয়ে নিতে হবে নারকেল কুড়নো। পাশাপাশি আপনাদের নিতে হবে খেজুরের গুড়। চাইলে আপনারা পিঠের পরিমাণ অনুযায়ী গুড় নিতে পারেন। আবার যদি আপনারা গুড় খেতে বেশি পছন্দ করেন তাহলে কিন্তু এটা বেশি ব্যবহার করলেও ক্ষতি নেই।

এরপর যেকোনো চাকু বা ধারালো জিনিসের সাহায্যে আপনাদের গুড়গুলোকে একটু ঝুরঝুরে করে নিতে হবে, যাতে খুব সহজেই পিঠের সাথে মিশে যায়। এবার পরিমাণ মতো লবণ দিয়ে আপনাদের চালের গুঁড়ো মেখে নিতে হবে। জলের পরিমাণ কিন্তু আপনারা সঠিকভাবে দেবেন, কারণ এটা কম বেশি হলে কিন্তু পিঠে ভালোভাবে তৈরি হবে না। একবারে সম্পূর্ণ জল ঢালবেন না অল্প অল্প করে জল দিয়ে চালের গুঁড়ো মাখবেন।

২) আপনাদের একটা চালনি বা বড় ঝুড়ি নিয়ে নিতে হবে। যে চালের গুঁড়ো আপনারা মেখে রেখেছেন সেটাকে এই চালনির সাহায্যে ভালো করে চেলে নিতে হবে। যেভাবে ভিডিওতে দেখানো হয়েছে তেমন ভাবেই হাতের সাহায্যে ডলে ডলে নিতে হবে। ভালো করে সম্পূর্ণ চালের গুঁড়ো এভাবে চেলে নেওয়া হয়ে গেলে দেখবেন অনেকটা সুজির মতন দেখাচ্ছে।

এবার গ্যাস ওভেন অন করে তাতে ভাতের হাড়ি বসিয়ে মোটামুটি একেবারে গলা পর্যন্ত জল ভর্তি করে দিতে হবে।

এবার অন্য একটি বাটি নিয়ে তার মধ্যে প্রথমে দিয়ে দিতে হবে চালের গুড়ো। তারপর গুড় দিয়ে একটা আস্তরণ তৈরি করতে হবে। এবারে আরো একটু পরিমাণ চালের গুঁড়ো দিয়ে আর নারকেল কুড়ো দিয়ে আরেকটা আস্তরণ তৈরি করুন। সবশেষে আরো একবার চালের গুঁড়ো ছড়িয়ে দিন এটার উপরে। খুব আলতো হাতে এই কাজটি কিন্তু আপনাদের করতে হবে।

৩) সর্বশেষ ধাপে আপনাদের নিয়ে নিতে হবে একটি বড় ঝুড়ি বা চালনি। তার উপরে এই পিঠের বাটিটি বসিয়ে মোটা কোন কাপড়ের সাহায্যে ভালো করে মুড়িয়ে ঢেকে দিন।

এবার গ্যাসের উপর যে হারি আপনারা গরম হতে দিয়েছিলেন ঠিক তার উপরে এই ঝুড়িটি বসিয়ে ঢাকা দিয়ে দিন। মোটামুটি ২০ থেকে ২৫ মিনিট সময়ের মধ্যেই সম্পূর্ণ পিঠে ভাপে সেদ্ধ হয়ে তৈরি হয়ে যাবে ভাপা পিঠে।

শুধুমাত্র শীতকাল নয় বাচ্চাদের আনন্দ দেওয়ার উদ্দেশ্যে কিন্তু বছরের যে কোন সময়তেই আপনারা এই ভাপা পিঠে তৈরি করে নিতে পারবেন। অত্যন্ত সহজ পদ্ধতিতে আজকে এই পিঠে তৈরির রেসিপি শেয়ার করা হয়েছে। হাতের সময় থাকলে অবশ্যই কিন্তু একবার বাড়িতে এটা ট্রাই করতে ভুলবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button