ধনেপাতা দিয়ে বাড়িতেই এই সহজ পদ্ধতি মেনে বানিয়ে ফেলুন ধনে পাউডার, ১২ মাস রাখলেও নষ্ট হবে না গ্যারান্টি!

নিজস্ব প্রতিবেদন : নিরামিষ থেকে শুরু করে আমিষ কমবেশি অনেক রান্নাতেই কিন্তু ধনে গুঁড়ো বা ধনে পাউডার ব্যবহার করে থাকে। বাজারের যেকোন দোকানেই আপনারা এই ধনে গুঁড়ো খুব সহজেই কিনতে পেয়ে যাবেন। তবে কি হয় আজকাল অনেক ক্ষেত্রেই বাজারে বিক্রিত বিভিন্ন মসলার মধ্যে কিন্তু নানান ধরনের ভেজাল মেশানো হয়ে থাকে। যার ফলস্বরূপ মসলার একটা দারুন গন্ধ বা স্বাদ কিন্তু রান্নার মধ্যে পাওয়া যায় না।

আগেকার দিনে মা ঠাকুমারা যেমন বাড়িতেই বিভিন্ন রান্নার মসলা তৈরি করে থাকতেন আজকাল আর সেরকম কিন্তু প্রায় দেখা যায় না বলা চলে। সবাই এখন দৈনন্দিন জীবনে ব্যস্ত। তাই মানুষ কিন্তু সব সময় চেষ্টা করে কিভাবে শর্টকাট পদ্ধতিতে কাজ চালানো যায়। সুতরাং এখন মা ঠাকুমার হাতের তৈরি মসলার জায়গায় রান্নাঘরের তাক দখল করে নিয়েছে বিভিন্ন বাজার চলতি মসলা।

তবে এই সবকিছুর মাঝেই যদি এমন কোন ব্যক্তি থাকেন যারা এই যুগে দাঁড়িয়েও বাড়িতে মসলা তৈরি করতে চান তাদের জন্যই আমাদের এই বিশেষ প্রতিবেদন। আজ আমরা আলোচনা করব বাড়িতেই সহজে ধনে গুঁড়ো তৈরি করার পদ্ধতি। পাশাপাশি এটাকে কিভাবে সংরক্ষণ করতে হবে সেই সম্বন্ধেও জেনে নেব।

সহজ উপায়ে বাড়িতে বসেই ধনে গুঁড়ো তৈরির পদ্ধতি:

১) প্রথমেই আপনাদের কিছুটা পরিমাণে ধনেপাতা নিয়ে নিতে হবে। তারপর যদি এর মধ্যে কোন হলুদ পাতা বা ডাটা থাকে সেটাকে আপনাদের কিন্তু প্রথমেই আলাদা করে দিতে হবে। নিচের অংশটাও অর্থাৎ ধনেপাতার ডাটার নিচের অংশটাও সামান্য কেটে নেবেন।

একটি পাত্রে কিছুটা পরিমাণ জল নিয়ে আপনাদের তার মধ্যে কয়েকটা আইস কিউব ঢেলে দিতে হবে। তার মধ্যে যে ধনেপাতা গুলিকে আপনারা পাউডার তৈরি করার জন্য নিয়েছিলেন সেগুলিকে দিয়ে দিন। ঠান্ডা জলে এরকম ভাবে রাখলে কিন্তু এটা একেবারে তাজা অবস্থায় থাকবে এবং গন্ধটাও দারুন হবে। এবার আপনাদের এটাকে হালকা করে ধুয়ে নিতে হবে, যাতে কোনরকম ধুলোবালি থাকলে সেটা চলে যায়।

২) দ্বিতীয় ধাপে ধনেপাতা গুলিকে ঠান্ডা জল থেকে তুলে আপনাদের প্রথমেই একটি স্টেনারের সাহায্যে জল ঝরিয়ে নিতে হবে। তারপর একটা সুতির কাপড়ের উপর ধনেপাতা গুলিকে বিছিয়ে দিন। যদি আপনারা একেবারে তাজা ধনের গুড়োর মতন গন্ধ পেতে চান তাহলে কিন্তু ভুল করেও এটাকে রোদে শুকাবেন না।

সাধারণ ফ্যানের হাওয়ায় শুকিয়ে নিলেই কিন্তু কাজ হবে। মোটামুটি প্রায় একদিন আপনাদের এটাকে ফ্যানের হাওয়ায় শুকিয়ে নিতে হবে। যদি একদিন পরে আপনারা দেখেন এটার মধ্যে একটা কোমল ভাব আছে তাহলে কিন্তু আপনাকে আরো কিছুটা সময় এটাকে ফ্যানের হাওয়াতেই শুকিয়ে নিতে হবে।

৩) ব্যাস এরপরের ধাপে আপনাদের যে কাজটি করতে হবে তা হল ধনেপাতাগুলি ভালোভাবে শুকিয়ে যাওয়ার পরে একেবারে সকালের যে মিঠে রোদ থাকে তাতে আপনাদের অন্ততপক্ষে আধ ঘন্টা ধনেপাতা গুলিকে ফেলে রাখতে হবে। এই ধরনের রোদে যদি আপনারা কিছুটা সময় ধনেপাতা রাখেন তাহলে অনেকটাই ক্রিসপি হয়ে যাবে।

পাশাপাশি এর স্বাদ বা গন্ধ কোনটাই কিন্তু নষ্ট হবে না। ধনে পাতা কিছুটা ক্রিস্পি হয়ে গেলে আপনারা কিন্তু খুব সহজেই এগুলোকে হাতের সাহায্যে গুঁড়ো করে নিতে পারবেন। দানাদার অংশ যাতে পাউডারের মধ্যে না থাকে তার জন্য ছাকনির সাহায্যে ছেঁকে নিতে পারেন। চাইলে মিক্সারের সাহায্যেও আপনারা এই কাজটি করতে পারেন।

দীর্ঘ সময় পর্যন্ত ধনের গুঁড়ো সংরক্ষণ করার উপায়:

ধনের গুঁড়ো বা ধনে পাউডার সংরক্ষণ করা কিন্তু খুবই সোজা। এর জন্য আপনাদের নিয়ে নিতে হবে একটি এয়ারটাইট কন্টেনার বা কাঁচের জার। তার মধ্যে আপনারা ধনের গুঁড়ো ভরে ভালো কোন জায়গায় রেখে দিন। প্রায় ৬ মাস থেকে এক বছর সময় পর্যন্ত এটা খুব সহজেই কিন্তু ভালো অবস্থায় থাকবে এবং আপনারা রান্নার কাজে ব্যবহার করতে পারবেন।

Back to top button