হেরে গেলেন তারকা প্রার্থী অভিনেত্রী পায়েল সরকার, হেরে গিয়ে কেঁ’দে চোখ ভা’সালেন অভিনেত্রী , তু’মু-ল ভাইরাল ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- অভিনয় জগতে একজন সুদক্ষ অভিনেত্রী হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন । একের পর এক দু-র্ধর্ষ অভিনয় অভিনয় করে নিজের নাম বাংলা অভিনয় জগতে গভীরভাবে খোদায় করেছেন । বলুনতো কার কথা বলতে চলেছি । হয়তো আপনারা অনেকেই বুঝতে পারছেন । ঠিকই ধরেছেন আমি এই মুহূর্তে বাংলার জনপ্রিয় অভিনেত্রী পায়েল সরকার কথা বলতে চলেছি ।আই লাভ ইউ সিনেমার মাধ্যমে পদার্পণ ঘটে তার অভিনয় জগতে ।তারপর থেকে পিছন ফিরে তাকাতে হয়নি।

প্রথম দিকে বেশ ভালো রকম ভাবে ছবিতে কাজ করার সুযোগ পেলও দিন দিন তা কমে আসছিল । এবং কোথাও যেন অ-গোচরে হা-রিয়ে যাচ্ছিল অভিনেত্রী পায়েল সরকার । হাতে তেমন কাজ পাচ্ছিল না এবং মানুষের স্রো-ত থেকে দূরে কোথাও চলে যাচ্ছিল পায়েল সরকার । তার অভিনীত ছবিগুলো মানুষ দেখতে পছন্দ করত না তেমন ভাবে। কিন্তু হঠাৎই মাথাচা-ড়া দিয়ে উঠল এবং যোগ দিলো ভারতীয় জনতা পার্টিতে। তার আগে যোগ দিয়েছিল শ্রাবন্তী চ্যাটার্জী । তারপরে যোগদান করলেন তিনি।

অভিনয় জগৎ থেকে হঠাৎ কেন রাজনৈতিক মঞ্চে এলেন তা এখনও অনেকের অজানা । তবে প্রধানমন্ত্রীকে আদর্শ মেনে এবং রাজ্যের অরাজকতা সরকারের বি-রুদ্ধে আ-ওয়াজ তোলার জন্যই তিনি ভারতীয় জনতা পার্টির হাত ধরেছেন এমনটা মনে করছে অনেকে । কিন্তু আদতে কি কারনে সেটি জানা এখনো যায়নি । কিন্তু এবারে বেহালা পূর্ব থেকে বিজেপির প্রার্থী হয়েছিলেন তিনি এবং তার বিপরীতে ছিল তৃণমূলের রত্না চট্টোপাধ্যায় অর্থাৎ শোভন দেব চট্টোপাধ্যায় প্রাক্তন স্ত্রী।

পায়েল সরকার অত্যন্ত আত্মবিশ্বাসী ছিলেন যে তিনি রত্না চট্টোপাধ্যায় কে গোহারা হারাবেন । কিন্তু উল্টো চিত্র দেখা গেল ভোটের ফলাফলের দিন । বাংলার মানুষ বিজেপিকে বর্জন করেছেন এটি নতুন করে বলার কিছু নেই তার সাথে সাথে বেহালা পূর্বের মানুষ পায়েল সরকারের থেকে বেশি বিশ্বাস করেছে রত্না চট্টোপাধ্যায় কে । তাইতো ৩৭ হাজার ভোটের ব্যবধানে হার স্বীকার করতে হলো পায়েল সরকার কে । যা তার কাছে অত্যন্ত লজ্জাজনক । যদিও এ ব্যাপারে কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি অভিনেত্রীর কাছ থেকে।

Back to top button