২৭ বছর ধরে এই গ্রামের নারীরা পুরুষ ছাড়া সন্তান জন্ম দেয়, কিভাবে জানলে অবাক হবেন!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- বর্তমানের এই পুরুষ-তা-ন্ত্রিক সমাজে কোথাও যেন মাথা-চা-ড়া দিয়ে উঠেছে নারীসমাজ । আগেকার দিনে না-রীদের কে অ-ব-হেলা করা হতো এবং এমনটা মনে করা হতো যে তাদের জন্ম হয় শুধুমাত্র বাড়ির রান্নাঘর সামলাবার জন্য । তার পাশাপাশি না-রী-দের শ-রীফ ভো-গ্য ব-স্তু হি-সেবে বিবেচনা করা হতো । কিন্তু সময় পাল্টেছে তার সাথে সাথে পাল্টেছে মানুষের মানসিকতা । তাই এখন সমাজের অগ্রগতির ক্ষেত্রে পুরুষের পাশাপাশি নারীদের সমান ভূমিকা রয়েছে।

একটি সন্তান জন্ম দেওয়ার জন্য পুরুষ এবং স্ত্রী-র স-ঙ্গম এর প্র-য়ো-জন হয় । কিন্তু কখনো কখনো এমন কিছু বিরল ঘটনা দেখা যায় যা আমাদেরকে অবাক করে তোলে । অ-বাক ক-রার ম-তন কান্ড বর্তমান যুগে সোশ্যাল মিডিয়াতে ঘোরাফেরা করছে প্রতিনিয়ত । এই ঘটনা তার প্রমাণ । কারণ দীর্ঘ ২৭ বছর ধরে এই গ্রামে কোন পুরুষ ছাড়াই নারীরা সন্তানের জন্ম দিয়ে থাকে । অবাক হচ্ছেন? কিন্তু তেমনটাই বাস্তবে ঘটেছে । বৃটিশদের আমলে এই গ্রামে অ-ত্যা-চা-রিত হ-তে না-রীরা । এমনকি ১৫ জনকে গ-ণ-ধ-র্ষণ ক-রা হ-য়েছিল সেই সময়।

তাই তারপর থেকে তারা ঠিক করে গ্রামের একটি নির্দিষ্ট অঞ্চলে তারা বসবাস করবে । এবং নিজেদের বংশবিস্তার বাড়িয়ে তুলবে । দক্ষিণ কোরিয়ায় এমন চিত্র দেখা গেছে । এবং সেই চিত্র উঠে এসেছে সোশ্যাল মিডিয়ার হাত ধরে সবার সামনে । আসলে কিভাবে সম্ভব পুরুষ ছাড়া জন্ম দেবার? জানাবা আপনাদের এই প্রতিবেদনে। ঘটনাটি একটু অন্যরকম । দক্ষিণ কোরিয়া ওই গ্রামে শুধুমাত্র মহিলারা বসবাস করেন ।

তারা যে সমাজে স্বাবলম্বী সেটা নতুন করে প্রমাণ করার চেষ্টা করার কোন দরকার নেই । তাই যে সমস্ত নারীরা গৃহস্থবাড়িতে অ-ত্যা-চা-রিত হয় বা গ-ণ-ধ-র্ষ-ণের শি-কার হয় সেই নারীদেরকে আশ্রয় দেওয়া হয় ওই গ্রামে । এবং আপনি জানলে অবাক হবেন যে দীর্ঘ ২৭ বছর ধরে সেই গ্রামে কোন পুরুষের বসবাস নেই । শুধুমাত্র নারীদের বসবাস এবং সেখানে যারা অ-ন্তঃস-ত্ত্বা হ-য়ে প-ড়েন তাদের বা-চ্চা প্র-সব ক-রা হ-য় । অবাক করা এই ঘটনাটি সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে প্রকাশ্যে আসাতে ঝ-ড়ের গ-তিতে ভাইরাল হয়েছে । তার পাশাপাশি এই কান্ড দেখে অনেকেই হ-ত-ভ-ম্ব হয়েছেন মনে জেগেছে হাজার প্রশ্ন ।

Back to top button