প্রেসার কুকার সিটি মারছে না? মাত্র ৫মিনিটে ঠিক করুন এই কার্যকরী ঘরোয়া টিপসে!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- প্রেসার কুকারে রান্না ছাড়া মানুষের দৈনন্দিন জীবন একপ্রকার অচল বলা যায়। মাংস থেকে শুরু করে ভাত সমস্ত কিছুই কিন্তু দেখবেন প্রেসার কুকারে করাটা সবথেকে ভালো হয়। কিন্তু এই সবকিছুর মাঝে আসল কথা হল সিটি ছাড়া প্রেশার কুকার কোন কাজের নয়। মাঝে মাঝেই এর আওয়াজ বন্ধ হয়ে যায়। তা নিয়ে আর চিন্তা করার প্রয়োজন নেই। এবার থেকে এরকমটা হলে আজকের এই সামান্য টিপসটি ব্যবহার করুন। দেখবেন এই টিপস আপনাদের অনেক কাজে লাগবে। চলুন তাহলে আর দেরি না করে আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক।

  • প্রেসার কুকারে সিটি বন্ধ হয়ে গেলে কি করনীয়:

প্রেসার কুকার যদি সিটি না দেয় সেক্ষেত্রে আপনাদের প্রথমেই নিয়ে নিতে হবে একটি সুচ এবং সুতো। প্রেশার কুকার যেখান থেকে সিটি মারে তাকে বলে প্রেসার রেগুলেটার। এই রেগুলেটার টি খুলুন। তার নিচে যে লম্বা সরু অংশ দেখতে পাচ্ছেন তা হল স্টিম ভেণ্ট। এই স্টিম ভেণ্টে ময়লা জমে গিয়ে প্রেশার কুকারের সিটি বাজা বন্ধ হয়ে যায়। তাই এটা পরিষ্কার করা জরুরি। আর এটি পরিষ্কার করার জন্যই আপনাদের সুচ আর সুতো ব্যবহার করার প্রয়োজন হবে।

প্রথমেই আপনাদের প্রেসার রেগুলেটর খুলে নেওয়ার পরে ঢাকনা ভেতরের দিকে উল্টে দিতে হবে। উল্টালে দেখতে পাবেন স্টিম ভেণ্টে সেন্টারে একটা ছিদ্র আছে যেটা বড়। আর সাইডে দুই থেকে তিনটে ছিদ্র আছে যা ছোট। বড় ছিদ্রটা দিয়ে বড় সূচে সুতো ভরে এপাশ ওপাশ করুন বার চারেক। দেখবেন সুতোর গায়ে লেগে ময়লা বেরিয়ে আসছে। ঠিক একই রকম পদ্ধতিতে আপনাদের অন্যান্য ছোট ছিদ্রগুলিও পরিষ্কার করে নিতে হবে।

মোটামুটি মিনিট পাঁচেক সময় এভাবে করলেই দেখবেন সমস্ত ছিদ্র পরিষ্কার হয়ে ময়লা বেরিয়ে এসেছে। তবে এতে ক্ষান্ত হয়ে গেলেই কিন্তু হবে না। এরপর আপনাদের প্রেসার কুকারের ঢাকনা খুলে জল ভরে নিয়ে প্রেসার কুকার পরীক্ষা করে দেখতে হবে। তাহলেই দেখবেন সিটি না বাজার সমস্যা খুব সহজেই সমাধান হয়ে গিয়েছে। এমনকি মনে হবে আপনার প্রেসার কুকার কোনো আনন্দে যেন সিটির পর সিটি মেরে চলেছে।

এছাড়াও আমরা একটি বিশেষ ব্যাপার নিয়ে আপনাদের সাথে আলোচনা করে নেব। দুধ বা দুধ দিয়ে তৈরি খাদ্য সামগ্রী একটু বলক এলেই উপচে পড়ে যাওয়ার মতন অবস্থা হয়। এই জাতীয় খাদ্য সামগ্রি কুকারে রান্না করা থেকে বিরত থাকুন। মাছ অতিরিক্ত রান্না করলে এর পুষ্টিগুণ নষ্ট হয়ে যাওয়ার পাশাপাশি ভেঙ্গে যায়। মাছ রান্না করতে খুব বেশি সময় লাগে না তাই এটি রান্না করার সময় প্রেসার কুকার না ব্যবহার করাই ভালো। পাশাপাশি ডিম সেদ্ধ ও সবজি বা ফল কখনোই প্রেসার কুকারে সেদ্ধ করবেন না।

সবশেষে বলবো রান্না বসানোর পর প্রেসার কুকারের মুখ অবশ্যই ভালো করে পরীক্ষা করে দেখবেন। এখন পর্যন্ত না ভেতরের বাষ্প পুরোপুরি বের হয়ে আসছে ততক্ষণ কিন্তু এই মুখ খুলবেন না। গ্যাস বন্ধ করার অন্ততপক্ষে ১৫ মিনিট পর আপনাদের প্রেসার কুকারের মুখ খুলে ফেলতে হবে। এই টিপসগুলি মেনে চললে কিন্তু কখনোই দুর্ঘটনা ঘটবে না এবং দীর্ঘদিন পর্যন্ত আপনার প্রেসার কুকার ভালো অবস্থায় থাকবে।

Back to top button