এই ৯ টি দারুন টিপস্ জানা থাকলে মাছ কেনার সময় আর কোনদিন ঠকবেন না! রইল বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন:-আমাদের আশেপাশে পরিবেশে প্রতিনিয়ত অসাধু ব্যবসায়ী বা প্রতারকদের সংখ্যা বেড়ে চলেছে এই প্রতারণার হাত থেকে কিভাবে মুক্তি পাওয়া যাবে তা ভেবে কূলকিনারা পাচ্ছি না অনেকের এর শিকার হচ্ছে প্রচুর নিরিবিলি সাধারণ মধ্যবিত্ত পরিবারের মানুষেরা মাছের বাজার থেকে শুরু করে এটিএম এ টাকা তোলা সব ক্ষেত্রে কিন্তু অসাধু ব্যবসায়ী প্রতারকরা ফাঁদ পেতে বসে রয়েছে কিভাবে মানুষকে ঠকিয়ে টাকা উপার্জন করা যায় তার বুদ্ধি ক্রমশ প্রকট হচ্ছে প্রতিনিয়ত।

ধরুন আপনি বাজারে মাছ কিনতে গেলেন ।। ।।আপনার একটা মাছ খুব পছন্দ হলো এবং সেই মাছটি আপনার খুব প্রিয় মাছ । কিন্তু দেখা গেল যে সেই মাছ পচা । বাইরে থেকে বোঝা যাচ্ছে না ।কারণ বিভিন্ন রং করে সেটাকে টাটকা দেখানোর চেষ্টা করানো হচ্ছে মাছ ব্যবসায়ী । কিন্তু কীভাবে আপনি বুঝতে পারবেন যে আপনার পছন্দের মাছটি টাটকা নাকি বাসি । তা জানার বেশ কয়েকটি নিয়ম রয়েছে তার মধ্যে কিছু নিয়ম আমরা এই প্রতিবেদনে তুলে ধরলাম

প্রথমত টাটকা মাছের চোখ স্বচ্ছ হয় এবং মনে হয় যে মাছটি এখনো পর্যন্ত জ্যান্ত রয়েছে । পচা মাছের ক্ষেত্রে চোখ ঘোলাটে হয় ।বিভিন্ন অসাধু ব্যবসায়ীরা মাছের মধ্যে ফরমালিন দিয়ে রাখে । এতে মাছের শরীরের অংশ পছন্দ না ঠিক কথাই কিন্তু চোখের ফোলাভাব বা স্বচ্ছতাকে এরা আটকাতে পারেনা ফরমালিন দিয়ে।

মাছের কানকো দেখাটা টাটকা মাছ চেনার একটা ভালো উপায়। যদিও মাছের কানকোতে এখন রঙ মিশিয়ে রাখেন দোকানিরা। তাই শুধু কানকো দেখে মাছ কিনবেন না। জে’নে রাখু’ন, টাটকা মাছের কানকো হবে তাজা র’ক্তের রঙের এবং পিচ্ছিল, স্লাইমি ভাব থাকবে।

টাটকা মাছের শরীর কখনোই শক্ত বা নরম হবে না বরং বাউন্সি হবে । অর্থাৎ তুলতুলে হবে ।আঙ্গুল দিয়ে পেটের মধ্যে চাপ প্রয়োগ করলে যদি শরীর শক্ত অনুভব হয় তাহলে বুঝবেন সেই মাছ ফ্রিজে রাখা ছিল এবং মাছটি বাঁশি ।

টাটকা মাছের গন্ধ হবে সমুদ্র জলের মতন । এমনকি শসার মতন হতে পারে। যে সমস্ত মাছ থেকে এখানে গন্ধ বেরোচ্ছে না নিশ্চিত থাকুন আপনি যে সমস্ত মাছ টাকানা নয় ।

Back to top button