মুরগীর মাংস নিয়ে এবার আসলো বড় দুঃসংবাদ, অস্বস্তিতে সাধারণ মানুষ!

নিজস্ব প্রতিবেদন:- আমাদের মধ্যে এমন অনেকেই আছে যারা নিজেদের শরীরকে সুস্থ স্বাভাবিক এবং সতেজ রাখার জন্য প্রতিনিয়ত হায় প্রোটিনযুক্ত খাবার গ্রহণ করে থাকে । এবার এই হাই প্রোটিন যুক্ত খাবারের মধ্যে যেমন রয়েছে ডিম রয়েছে তেমনি রয়েছে মাংস ।

সপ্তাহে দুই দিন বা তারও বেশি মাংস খায় না এমন মানুষ খুব কম মানুষ পাওয়া যাবে না । কিন্তু এই গবেষণায় উঠে এসেছে যে ফলাফল তা রীতিমত অবাক করবে আপনাদেরকে এবং আপনারা এরপর থেকে হয়তো মাংস খাওয়া বন্ধ করে দেওয়ার চিন্তাভাবনা গ্রহণ করবেন ।

শরীরে রোগ ব্যাধি বা জর জালা হলে আমরা সাধারণত অ্যান্টিবায়োটিক জাতীয় কোন ওষুধ খেয়ে থাকি প্রাথমিকভাবে । যার ফলে অধিকাংশ জ্বর জ্বর সর্দি কাশি ঠিক হয়ে যায় । কিন্তু বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছে যে এবার থেকে মুরগির মাংস খেলে কাজ করবে না অ্যান্টিবায়োটিক ।

একদম ঠিক শুনেছেন । আপনি যদি প্রতিনিয়ত মুরগির মাংস তে অভ্যস্ত থাকেন তাহলে কিন্তু আপনার শরীরে কাজ করবেনা কোন অ্যান্টিবায়োটিক । যার ফলে রোগ সেরে যেতে অনেক সময় লাগবে । কিন্তু কেন তা জানাচ্ছে বিজ্ঞানীরা বিস্তারিত ভাবে ।

সম্প্রতি লন্ডনের ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেটিভ জার্নালিজিম-এর চালানো এক গবেষণায় দেখা গেছে যে, পোল্ট্রি খামারে কোলিস্টিন নামের একটি অ্যান্টিবায়োটিক মুরগির খাবারের সঙ্গে উচ্চ মাত্রায় ব্যবহার করা হচ্ছে। ফলে বাজারের প্রায় সব মুরগির মাংসেই কম বেশি কোলিস্টিনের উপস্থিত রয়েছে। অ্যান্টিবায়োটিকের ক্ষেত্রে ওয়ার্ল্ড হেল্থ অর্গানাইজেশন যে বিধি-নিষেধ দিয়েছে তা কোনও ভাবেই মানা হচ্ছে না। ফলস্বরূপ, বেশিরভাগ অ্যান্টিবায়োটিকই সুপারবাগ বা বিশেষ ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণ রোধ করতে ব্যর্থ হচ্ছে।

Back to top button