রান্নাঘরের রোজকার তরকারি হবে দ্বিগুণ বেশি সুস্বাদু! শুধুমাত্র জেনে রাখুন রান্নার মশলা সম্পর্কিত এই ৫টি দুর্দান্ত টিপস

নিজস্ব প্রতিবেদন: যে কোন রান্নাই সুস্বাদু করে তুলতে গেলে আমাদের কতগুলি বিশেষ টিপস কাজে লাগাতে হয়। অনেক ক্ষেত্রেই রান্নায় কোন মসলা বা ঝাল বেশি হয়ে গেলে কিন্তু গৃহিণীদের বেশ সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা তাই আপনাদের সাথে মশলা সংক্রান্ত কয়েকটি টিপস শেয়ার করে নিতে চলেছি।

নতুন থেকে শুরু করে পুরনো গৃহিণী সকলেরই কিন্তু এই টিপস অত্যন্ত বেশি রকমের কাজে লাগতে চলেছে। তরকারিতে লবণ, লঙ্কা, মশলা সঠিক পরিমাণে না থাকলে পুরো তরকারির স্বাদই নষ্ট হয়ে যায়। তাই অবশ্যই সুস্বাদু খাবার তৈরি করতে গেলে আপনাদের কিন্তু এই টিপসগুলি মেনে চলতে হবে। নয়তো যে কোন রান্না করতে গেলে কিন্তু আপনারা সমস্যার মুখোমুখি হতে পারেন।

রান্নায় মসলার প্রয়োগ সম্পর্কিত বিশেষ কয়েকটি টিপস:

১) খাবারে লাল লঙ্কার গুঁড়ো বা লাল লঙ্কার প্রয়োগ:

মসুর ডাল বা যে কোন সবজিতে স্বাদ বাড়ানোর জন্য কিন্তু আপনারা কাঁচা লঙ্কা যোগ করার পরিবর্তে গুঁড়ো লাল লঙ্কা ব্যবহার করতে পারেন।। এই জাতীয় রান্নায় টেম্পারিংয়ের জন্য, কুচানো লাল লঙ্কা যোগ করুন। গুঁড়ো লঙ্কার স্বাদ চূর্ণের চেয়ে বেশি আসে এবং তরকারিটিও সুস্বাদু হয়।

একইভাবে প্রি-গ্রাউন্ড কালো গোলমরিচ ব্যবহার না করে তাজা গোটা গোলমরিচ পিষে নিন। খাবারের স্বাদে কতটা পরিবর্তন আসবে সেটা কিন্তু আপনি রান্না করার পরেই বুঝতে পারবেন। পরবর্তী সময়ে অবশ্যই এই রান্না গুলি তৈরি করার সময় আজকের এই বিশেষ টিপসটি ট্রাই করে দেখতে ভুলবেন না।

২) হাত দিয়ে লবণের প্রয়োগ:

যেকোনো রান্না তে লবন দেওয়ার সময় কিন্তু আমরা চামচ ব্যবহার করে থাকি। তবে যখন কোন শেফ দের আপনারা রান্না করতে দেখবেন লক্ষ্য করবেন তারা কিন্তু লবণ হাত দিয়ে প্রয়োগ করেন। কারণ হাত দিয়ে যখন লবণ প্রয়োগ করা হয় তখন কিন্তু তার সমস্ত রান্নার মধ্যে খুব সুন্দর ভাবে ছড়িয়ে পড়ে।

খাবার একটু সেদ্ধ হলেই লবণ দিন। অনেক বাড়িতে সবজি গলানোর জন্য লবণ মেশানো হয়। যার কারণে শেষ পর্যন্ত লবণ কম-বেশি হয়ে যায়। রান্না করার সময় যদি আপনি এই ব্যাপারটি লক্ষ্য না রাখেন সে ক্ষেত্রে কিন্তু খাবার বেশি লবণাক্ত হয়ে যেতে পারে।

৩)গোটা জিরে ও ধনে ভেজে গুঁড়ো করে প্রয়োগ:

সবজি বা যে কোন তরকারি যদি আপনারা একটু ভিন্ন স্বাদের রান্না করতে চান সেক্ষেত্রে গোটা জিরে আর গোটা ধনে আপনারা কিন্তু একটু ভেজে গুঁড়ো করে দিতে পারেন। এটা করতে খুব একটা বেশি সময় আপনাদের লাগবে না। তাই পরবর্তীতে রান্না করার সময় কিন্তু অবশ্যই এটা আপনারা একবার ট্রাই করবেন।

প্যাকেটের মশলার চেয়ে এর গন্ধ ও স্বাদ দুই বেটার। তাছাড়া ঘরে বানিয়ে এই মশলা তরকারিতে দিয়ে খেলে কোন রকম গ্যাস অম্বলের সম্ভাবনা থাকে না। গোটা ধনে বা গোটা জিরের মতন কিন্তু আপনারা চাইলে বাড়িতে তরকারিতে দেওয়ার মতন গরম মশলা ও বানিয়ে ব্যবহার করতে পারেন।।

৪)তরকারিতে লাল লঙ্কার স্বাদ ও রঙ পেতে এটি এভাবে যোগ করুনঃ

যদি আপনি বা আপনার পরিবারের কোনো সদস্য যে কোন রান্নায় লাল লঙ্কার স্বাদ আর রং বেশি পছন্দ করে থাকেন সেক্ষেত্রে প্রথমে তেলে লাল লঙ্কার গুঁড়ো ও হলুদ দিয়ে দিন। এর পরপরই টমেটো, পেঁয়াজ ইত্যাদি দিন। যাতে লাল লঙ্কার গুঁড়ো পুড়ে না যায়। এতে কিন্তু আপনাদের খুব বেশি লাল লঙ্কা ব্যবহার করতেও হবে না, পাশাপাশি স্বাদে পরিবর্তন আপনারা নিজেরাই বুঝতে পারবেন।। এভাবে লঙ্কা যোগ করলে কিন্তু খাবারের রংও খুব সুন্দর হয়ে উঠবে।

৫)যেকোনো গুঁড়ো মশলা গরম জলে গুলে প্রয়োগ করুন:

তরকারিতে কিন্তু যে কোন গুঁড়ো মসলা প্রায় সময় আমরা ব্যবহার করে থাকি যাতে এর স্বাদ আর গন্ধ দুটোই সুন্দর হয়ে থাকে। তবে এগুলো আপনারা সরাসরি রান্নায় যোগ করবেন না এবার থেকে। সেই জায়গায় আপনারা বানিয়ে নিতে পারেন সহজ পদ্ধতিতে একটি পেস্ট। একটি বাটিতে গুঁড়ো মশলা নিন পরিমান মত।

তারপর তাতে দিন সামান্য জল। যাতে একটা পেস্ট তৈরি হয়। এভাবে যদি আপনারা যে কোন তরকারিতে গুঁড়ো মসলা যোগ করে থাকেন তাহলে তার স্বাদ কিন্তু এক ধাক্কাতেই দ্বিগুণ হয়ে যাবে। অবশ্যই আমাদের আজকের এই বিশেষ পাঁচটি টিপসের মধ্যে যে কোন টিপস ট্রাই করে নিজেদের অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে ভুলবেন না।

Back to top button