জুনিয়র অভিনেতার গা’য়ে কেনো হাত তু-লে-ছিলেন দেব? এবার সামনে আসলো আসল সত্যতা, ভাইরাল ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- খোকাবাবু যায় লাল জুতো পায় বড় বড় দিদিরা সব উকি মেরে যায়”- একসময় এই গানের লাইনে তো-ল-পাড় ক-রে ফে-লেছিল গোটা বাংলা ইন্ডাস্ট্রি। তার জীবন কাহিনী সম্পর্কে জানেন খুব কম মানুষ আছে।এখন সেই মানুষটি এখন একজন অভিনেতার পাশাপাশি এই রাজ্যের দায়িত্ববান সাংসদ।আমি এই মুহূর্তে দেব বা দীপক অধিকারীর কথা বলছি। বেশ কিছুদিন আগে একটি ভিডিও ব্যা-পক প-রিমাণে ভাইরাল হয়েছিল সেখানে দেখা গিয়েছিল যে দীপক অধিকারী অর্থাৎ দেব জুনিয়র একজন অভিনেতা কে স-পাটে চ-ড় মা-রেন । কিন্তু কেন এর পিছনে কি ঘটনা রয়েছে?

আদৌ কি ঘটনাটি সত্যি? নাকি সাজানো? সেই সমস্ত অনেকগুলো প্রশ্ন ঘোরাফেরা করছিল এতদিন ধরে তবে কি হয়েছিল সেটা জানাবো আপনাদের এই প্রতিবেদনে। অভিনয় জগতের সাথে যুক্ত দেব বা দীপক অধিকারী কে আমরা প্রত্যেকেই চিনি । সেই দেবের অভিনয় রীতিমতো তাদের ম-ন্ত্র-মুগ্ধ করে তুলেছে সকলকে । কিন্তু প্রথম দিকের যাত্রা মোটেও ম-সৃণ ছিল না তার । আমরা যারা অভিনেতা-অভিনেত্রীদের জীবন কাহিনী জানার জন্য আগ্রহী হয়ে থাকি তারা প্রতিনিয়ত খোঁজ করে চলি যে তাদের জীবনে কি কি ঘটনা ঘটেছে । প্রথম দিকে তিনি মুম্বাইয়ের কর্মরত ছিলেন এবং একটি ছবিতে অভিনয় করার জন্য ডাক পেলেন । তিনি মুম্বাই থেকে ট্রেন ধরে কলকাতার উদ্দেশ্যে রওনা দেন ।

কিন্তু মাঝখানের নাগপুর স্টেশন থেকে নেমে যেতে হয় কারণ পরিচালকের ফোন আসে দেবের কাছে এবং সেখান থেকে জানানো হয় যে ছবিটি আর হচ্ছে না । ভে-ঙ্গে যাই তার এতদিনের স্বপ্ন। ২০০৬ সালে প্রথম ছবি মুক্তি পায় যার নাম ‘অগ্নি শপথ’ । কিন্তু সেই ছবিটি ভাল রকম সাফল্য আনতে পারেনি । অবশেষে রবি কিনাগির পরিচালনার আই লাভ ইউ সিনেমার মাধ্যমে নিজেকে সফল অভিনেতা হিসেবে আ-ত্ম-প্রকাশ করেন । এবং তারপর একের পর এক হিট ছবি দিয়ে রীতিমত জনপ্রিয়তার তু-ঙ্গে পৌঁছায় আজকের দেব ।

আমাদের মধ্যে অনেকেই এটা ভেবে থাকে যে অভিনেতা-অভিনেত্রীদের ব্যক্তিগত কোনো জীবনের মূল্য থাকে না সবটাই শ্রোতা-দর্শক দর্শক বন্ধুদের উদ্দেশ্যে বিলিয়ে দেওয়া উচিত । কিন্তু তাদের ব্যক্তিগত জীবন থাকতে পারে সে বিষয়ে আমরা বিন্দুমাত্র চিন্তিত নয় । কয়েক দিন আগে ভাইরাল হওয়া সেই ভিডিওতে দেখা হয়েছিল একজন জুনিয়র অভিনেতা দেবের সামনে কিছু ব্যক্তিগত প্রশ্ন এবং অ-শ্লীল প্রশ্ন করতে থাকে । যার ফলে ক্ষি-প্ত হয়ে তাকে সপাটে চ-ড় মা-রেন । তারপরে মিডিয়াতে ছ-ড়িয়ে প-ড়ে হু-লু-স্থূলুস কান্ড । প্রশ্ন ওঠে দেবে চরিত্র নিয়ে । কিন্তু পরবর্তী ক্ষেত্রে নিজের মুখে জানান যে শুধুমাত্র একটি সামাজিক বার্তা প্রদান করার জন্য ইচ্ছাকৃতভাবে এই ধরনের ভিডিও তিনি করেছেন।

Back to top button