তৃনমুল নেতা মদন মিত্রের শারীরিক অবস্থার ফের অবনতি!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- এই রাজ্যের রাজনীতিতে কোথাও যেন মদন মিত্র এক আলাদা মাত্রায় দাবি রাখে । কারণ মদন মিত্র মানেই ‘বাংলার ক্রাশ’ । মদন মিত্র মানে একগুচ্ছ প্রতিশ্রুতি তার পাশাপাশি বেশ কিছু নিত্য নতুন ডায়ালগ ।কিন্তু দেশের এই করোনা প-রি-স্থিতিতে না-জে-হাল আমরা প্রত্যেকে । হা-রিয়ে যা-চ্ছে আমাদের আশেপাশে থেকে একের পর এক মানুষ জন । এবং সেই করোনা থাবা বসিয়েছে মদন মিত্রের শরীরে । এবং তার অবস্থা আ-শ-ঙ্কাজনক অনেকখানি । যার ফলে চিন্তায় রয়েছেন তার দলীয় কর্মী থেকে শুরু করে লক্ষ্য লক্ষ্য অনুগামীরা ।

এবারের বিধানসভা ভোট হা-ড্ডা-হা-ড্ডি হবে তা আমরা আগে থেকে জানতাম । এবং ঠিক তেমনি চিত্র ফুটে উঠেছে গত চার দফা ভোটের । দীর্ঘ ১০ বছর ধরে ক্ষ-ম-তায় রয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস একাধিক যাবতীয় কাজকর্ম করেছেন পশ্চিমবঙ্গের জন্য । এমনকি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণায় তৈরি হওয়া কন্যাশ্রী এবং সবুজ সাথী প্রকল্প বিশ্বদরবারে সম্মানিত হয়েছে । কিন্তু এর পরও সেই বাংলার ওপর চোখ পড়েছে বাংলা এবং বাঙালি বিরোধী বিজেপি সরকারের । তাই তারা যেনতেন প্রকারে এসে বাংলা দ-খল ক-রতে চা-য় । এবং তার জন্য তারা প্রস্তুতিতে কোনো খামতি রাখেনি।

পঞ্চম দফায় কামারহাটিতে ভোটগ্রহণ হয়েছিল। ভোটের সময় কামারহাটির বিভিন্ন বুথে ঘুরেছিলেন ওই আসনের তৃণমূল প্রার্থী মদন মিত্র। ভোটের শেষ লগ্নে অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন তিনি। তাঁকে প্রথমে কামারহাটিতে তৃণমূলের পার্টি অফিসে নিয়ে আসা হয়। অক্সিজেন দিতে হয়েছিল তাঁকে। চি-কি-ৎসকও আসেন। তাঁকে বিশ্রামের পরামর্শ দেওয়া হয়। এরপর শ্বা-স-ক-ষ্টের সমস্যা হওয়ায় তাঁকে এসএসকেএমে ভর্তি করা হয়। হা-স-পা-তালে কো-ভিড পরীক্ষা করা হলে রিপোর্ট পজিটিভ আসে তাঁর।

শুক্রবার একটি বিবৃতি দিয়ে মদন মিত্র তাঁর দলীয় সমর্থক, অনুগামী ও যাঁরা তাঁর সুস্থতা কামনা করেছেন তাঁদের সবাইকে ধন্যবাদ জানান তিনি। সেইসঙ্গে গত ৭ দিন তাঁর সংস্পর্শে যাঁরা যাঁরা এসেছিলেন, তাঁদের কো-ভিড পরীক্ষা করিয়ে নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। তবে এখন মদন মিত্রের শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল বলে জানিয়েছেন চি-কি-ৎসকরা ৷ ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিট থেকে তাঁকে আপাতত জেনারেল ওয়ার্ডে স্থানান্তর করা হয়েছে ৷ আপাতত অ্যাপোলো হা-স-পা-তালে ভর্তি রয়েছেন করোনা আ-ক্রান্ত মদন মিত্র ৷

Back to top button