ভারতের সব রেল স্টেশনের বোর্ডের রং হলুদ হয় কেন জানেন? ৯৯% মানুষ জানে না এর আসল রহস্য!

নিজস্ব প্রতিবেদন: ভারতের যেকোনো রেল স্টেশনের সাইনবোর্ডেই হলুদ রঙের উপরে কালো কালি দিয়ে লেখা দেখতে পাওয়া যায়। এই ছবি সকলেরই পরিচিত। কিন্তু কেন হলুদ সাইনবোর্ড সর্বত্র ব্যবহার করা হয়? এই কথা অনেকেরই অজানা। এর পিছনে রয়েছে রহস্য।হলুদ (Yellow) সাইনবোর্ড এবং কালো (Black) কালি ব্যবহার করার প্রধান উদ্দেশ্য হল সাইনবোর্ডটিকে উজ্জ্বল দেখানো। এই দুটি রং ব্যবহার করার ফলে অনেক দূর থেকেও সাইনবোর্ড দেখা যায় এবং সাইনবোর্ডে লেখা স্টেশনের নামও স্পষ্টভাবে পড়া যায়।

একইরকম কাজ করে কমলা, লাল এবং সবুজ রং। কিন্তু এই সকল রংগুলো সিগন্যালের কাজে ব্যবহার করা হয়ে থাকে। তাই এই রংগুলো সাইনবোর্ডে ব্যবহার করা হয় না। ট্রেনে থাকা যাত্রীদের জন্য স্টেশনের নাম গুরুত্বপূর্ণ না হলেও ট্রেনের চালকের জন্য এই নাম অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

যদি কোন ট্রেন কোন স্টেশনে না দাঁড়ায় সেক্ষেত্রে চালককে আগে থেকে হর্ন বাজিয়ে দিতে হয়। চালক যাতে দূর থেকে স্টেশনের নাম দেখে বুঝতে পারেন যে কোন স্টেশন আসছে, সেজন্যেই স্টেশনের সাইনবোর্ড উজ্জ্বল হওয়া জরুরী। আর এই কাজে হলুদ-কালো রং সাহায্য করতে পারবে বলে মনে করা হয়। এই রং ঘন কুয়াশার মধ্যেও স্পষ্টভাবে বোঝা যায়। স্টেশনের শুরু এবং শেষ দুই প্রান্তেই সাইনবোর্ড লাগানো থাকে। যাতে ট্রেনের চালক প্ল্যাটফর্মের শুরু এবং শেষ বুঝতে পারেন।

বিজ্ঞান বলে, অন্য যেকোনো রংয়ের তুলনায় হলুদ রঙের তরঙ্গদৈর্ঘ্য বেশি। তাই এই রং খুব সহজেই মানুষের চোখে এসে পৌঁছায়। দুর্যোগকালীন পরিস্থিতিতেও হলুদ রঙের জিনিস মানুষের চোখে আগে পড়ে। ঠিক একই কারণে স্কুল বাসের রঙও হলুদ করা হয়। যাতে সেই গাড়ি ঘন কুয়াশার মধ্যেও সকলের চোখে পড়ে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button