বস্তি থেকে বলিউড! গায়িকা নেহা কক্করের জীবনের গল্প যেকোনো সিনেমাকেও হার মানাবে!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- এই গল্প বসতি থেকে উঠে বলিউড জয় করা এক স্বল্প উচ্চতার মেয়ের । অভিনয় জগতের পাশাপাশি আমাদের ম-ন্ত্র-মু-গ্ধ করে রাখে সংগীত জগত । সংগীতের আলাদা একটা ক্ষমতা থাকে যা যেকোনো পরিস্থিতিকে মানুষকে দিতে পারে চরম শান্তি । সঙ্গীত জগতের এক জনপ্রিয় গায়িকা নাম হল নেহা কক্কর। তিনি তার সুরেলা কন্ঠ দিয়ে রীতিমত জয় করেছেন লক্ষ্য লক্ষ্য দর্শকের মন । শুধুমাত্র ভারতবর্ষে তার অনুগামী সংখ্যা আছে এমনটা ভাবলে খুব ভুল হবে । কারণ ভারতবর্ষের বাইরে রয়েছে তার প্রচুর সংখ্যক অনুগামী । তবে তার এই সাফল্য মোটেও সহজ ছিলো না ।

সংগীত জগতে এক জনপ্রিয় গায়িকা একটি রিয়েলিটি শো মাধ্যমে জানিয়েছিলেন যে ছোটবেলায় তার বাবা সিঙ্গারা বিক্রি করতেন। ভাই টনি কক্কর কে নিয়ে তিনি মুম্বাই চলে আসেন স্বপ্নপূরণের তাগিদ এ । তারপরে দাঁ-তে দাঁ-ত চে-পে চ-লে ল-ড়াই। অস্তিত্ব টিকে থাকার ল-ড়াই । অবশেষে আসে সফলতা।এই মুহূর্তে ভারতবর্ষের বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে সবথেকে জনপ্রিয় গায়িকা হলেন তিনি । তবে সম্প্রতি তিনি বিবাহ ব-ন্ধনে আ-বদ্ধ হয়েছেন এবং যাকে বিয়ে করেছেন তিনিও একজন গায়ক নাম রোহন প্রীত সিং।

ছোটবেলাতে তিনি গ্রামে গঞ্জে গান গেয়ে বেড়াতেন ।পারিশ্রমিক নিতেন মাত্র ১০০ টাকা । তারপর ২০০৬ সালে ইন্ডিয়ান আইডলের তিনি প্রতিযোগী হিসেবে যোগদান করেন । তারপরে তাকে পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি । তবে একথা অস্বীকার করার কোন উপায় নেই যে তাদের পরিবার অত্যন্ত আর্থিক অনটনে থাকা সত্ত্বেও তার বোন সনু কাক্কারের বাবুজি যারা ধীরে চলো নামক গানটি যখন ভাইরাল হয় তখন তার পরিবারে ফিরে আসে স্বাচ্ছন্দ।

এর পাশাপাশি সেই সময় থেকে নেহা কক্কর এবং তার ছোটভাই টনি কক্কর প্রতিজ্ঞা নেয় যে তারা বলিউডের বিখ্যাত গায়ক হয়ে দাঁড়াবে । ইতিমধ্যে অনেকেই চেনেন তাকে । ধীমে ধীমে নামক গানটির মাধ্যমে তিনি পেয়েছিলেন জনপ্রিয়তা । যদিও এখন অনেক ধরনের গানই করে থাকেন । তবে পুরো বিষয়টা এই মুহূর্তে বলা সম্ভব নয় । কারণ নেহা কক্করের জীবনের রয়েছে অনেক অজানা গল্প।

Back to top button