দইলস্যি, আমপানা, আর জীবন ঠান্ডা এই গরমে সেরার সেরা তিন তিনটি পানীয় রেসিপি, রইল ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- শীত পেরিয়ে গ্রীষ্মের আগমন ঘটে গেছে । তখন এই গ্রীষ্মে রোদে সামান্য পরিমাণ বাইরে বেরোলেই আমরা বুঝতে পারি যে ঠিক কতটা পরিমাণে উ-ত্তাপ গ্রা-স ক-রছে প্রতিনিয়ত আমাদের । প্রাকৃতিক সম্পত্তির উপর বারবার আ-ঘাত হে-নে আমরা নিজেদের বি-পদ নিজেই ডে-কে এ-নেছি । একথা অস্বীকার করার কোনো উপায় নেই । তাই প্রতিনিয়ত বেড়েই চলেছে তাপের পরিমাণ ।

গ্রীষ্মকাল আসতে না আসতেই দোকানে কোলড্রিংস বা পানীয় জিনিস গুলো বিক্রি বাটা ব্যাপক পরিমাণে বেড়ে যায় । দই লস্যি তাছাড়া বিভিন্ন সফট ও হার্ড ড্রিংকস এর বিক্রির পরিমাণ তুমুল পরিমাণে বেড়ে যায় । কিন্তু যে জিনিসটি শরীরের পক্ষে সব থেকে বেশি উপকারী সেটি হল আমের শরবত । আমের শরবত বানানো যায় কিভাবে অনেকেই হয়তো জানেন না । জানাবো প্রতিবেদনের মাধ্যমে । তার পাশাপাশি জানাবো আরো দুটি পানীয় কিভাবে বানাতে হয়।

গ্রামেগঞ্জে এক ধরনের বিশেষ পানীয় পাওয়া যায় যার নাম জীবন ঠান্ডা । অর্থাৎ বলতে পারেন কিছুটা লেবু জলের শরবত কিন্তু বিশেষভাবে তৈরি ।এই শরবত তৈরি করার জন্য প্রথমে আপনাকে কিছু মসলা ভাল করে ভেজে নিতে হবে এবং সে-গু-লিকে গুড়ো করে নিতে হবে । এরপর একটি গ্লাসে কিছু পরিমাণ বরফ নিলেন এবং তার মধ্যে দিলেন কিছুটা জল । তারপর তার মধ্যে দিয়েছিলেন এক থেকে দুই চামচ লেবুর রস , সামান্য পরিমাণ নুন সামান্য পরিমাণ নুন এবং আগে থেকে বেটে রাখা সেই ভাজা মশলা গুঁড়ো । তাহলে তৈরি হয়ে যাবে এই জীবন ঠান্ডা নামক পানীয় খেতে অত্যন্ত সুস্বাদু।

এরপর আপনাদেরকে বলবো কিভাবে দই লস্যি বানাতে হয় ।এটি বাড়ানোর জন্য প্রথমে টকদই কে ভালো করে ফেটিয়ে নিতে হবে । তারপর সেটি ক্লাসের মধ্যে দিতে হবে এবং তারপর যোগ করতে হবে কিছুটা পরিমাণে জল । আপনি যতটা পরিমাণে পছন্দ করেন এবং সবশেষে দিতে হবে আগে থেকে ভেজে রাখা মসলা । তাহলে তৈরি হয়ে যাবে দই লস্যি । চাইলে আপনি বরফের টুকরো যোগ করতে পারেন।

তৃতীয় যে পানীয়টির কথা বলব সেটার নাম হলো আম পান্না । কিভাবে তৈরি করবেন? প্রথমে আম গুলোকে ভাল করে পুড়িয়ে নিতে হবে এবং সেখান থেকে আমের শাস বের করে নিতে হবে ।এরপর জিরা মৌরি এবং ধোনের একটি ভাজা মশলা তৈরি করে গুঁড়ো করে নিতে হবে আপনাকে । এরপর গ্লাস এ দিতে হবে আগে থেকে বের করে রাখা আম এর শাস । এবং তার মধ্যে দিতে হবে কিছুটা পরিমান জল এবং সামান্য পরিমাণ নুন এবং আগে থেকে ভেজে রাখা মশলা । ভাল করে মিশিয়ে নিলেই তৈরি হয়েছে ঠান্ডা ঠান্ডা আম পান্না যা শরীরের পক্ষে অত্যন্ত উপকারী ।

Back to top button