“শ্রাবন্তীর মতো মেয়েকে ছাড়াই খুব ভালো আছি”,- সি’গারেট ধ’রি’য়ে খেতে খেতে বললেন রোশন, ভাইরাল ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- ব্যক্তিগত জীবন তার সুন্দর এবং ম-সৃণ চলছিল । অভিনয় জগত চলছিল তার সাথে সাথে । কিন্তু হঠাৎ করেই চিত্রটা কেমন করে জানি পাল্টে গেল । ম-নোমা-লিন্যে জেরে পরপর তিনটি সম্পর্ক ভে-ঙ্গে যা-ওয়া তে শ্রাবন্তীর উপর রা-গ চা-পতে শুরু করলো সাধারণ মানুষের । অবিশ্বাস করতে শুরু করলো তাকে । তার পাশাপাশি অভিনয় জগত তেমনভাবে আর মসৃন হয়ে উঠতে পারল না । তারই মাঝে শ্রাবন্তী চ্যাটার্জী যুক্ত হলেন ভারতীয় জনতা পার্টিতে । যে দলকে এই বাংলার মানুষ বাংলা বি-রোধী দল হিসেবে চেনেন সেই দলে যোগ দেওয়ার পর থেকেই শ্রাবন্তী হা-রাতে শুরু করলো তার বিপুল সংখ্যক অনুগামীদের কে ।

২০২১ এ হাইভোল্টেজ বিধানসভার ফলাফল এর দিকে তাকিয়েছিল প্রত্যেকে । কারণেই বিধানসভা ভোটের ফলাফল নির্ধারণ করে দিতো যে বাংলা আদতে বাঙালি থাকতে চলেছে নাকি বহিরাগতদের হাতে চলে যেতে চলেছে । তবে সবকিছুর অবসান ঘটিয়ে বাংলা বাঙালির হাতেই থাকলো । শা-সন ক্ষ-মতা নিজের হাতেই থাকলো । তবে ল-জ্জাজ-নকভাবে হারতে হলো শ্রাবন্তী চ্যাটার্জী কে। বেহালা পশ্চিম বিজেপির প্রার্থী হয়েছিলেন তিনি এবং তিনি নিজেকে বেহালা পশ্চিম এলাকার ঘরের মেয়ে হিসেবে দাবি করছিলেন ।

তিনি আ-ত্ম-বিশ্বাসে ছিলেন যে বিপুল সংখ্যক ভোটে পার্থ চট্টোপাধ্যায় বি-রুদ্ধে জয়লাভ করবে । কিন্তু উল্টো চিত্র দেখা গেল ভোটের ফলাফলের দিন । ৫০ হাজারের বেশি ভোটের ব্যবধানে গো হারা হেরে গেলেন শ্রাবন্তী চ্যাটার্জী । যদিও তার সম্পর্কের পর থেকে তার কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি ।কিন্তু প্রতিক্রিয়া মিলেছে তার প্রাক্তন স্বামী থেকে। কিন্তু ল-জ্জাজ-নকভাবে হেরে যাবার পরও তাকে ক-টুক্তি শি-কার হতে হয়েছে তার ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে ।

সম্প্রতি একটি ভিডিও শেয়ার করেছে তার ইনস্টাগ্রামে । যেখানে তাকে দেখা যাচ্ছে মনের আনন্দে সিগারেট খেতে খেতে তিনি গাড়ি চালাচ্ছেন । এবং সেই ভিডিও প্রকাশ্যে আসার পর থেকেই তার অনুগামীরা মন্তব্য করতে শুরু করেন যে দাদা তুমি শ্রাবন্তীকে ছাড়াই অনেক ভালো আছো । এরকম ভাবেই হাসিখুশি থাকো । তাহলে কি সত্যি শ্রাবন্তীকে ছেড়ে আনন্দে আছে? প্রশ্ন রয়েছে তার অনুগামী মহলের একাংশের । তার পাশাপাশি শ্রাবন্তীর এই ল-জ্জাজ-নক হারের যে বেজায় খুশি সেটা নতুন করে বলার অপেক্ষা রাখে না ।

Back to top button