বাড়িতে টবে এই বিশেষ পদ্ধতিতে চাষ করুন বেগুন, ফলন হবে দুর্দান্ত

নিজস্ব প্রতিবেদন :বাঙালিরা ভাতের সাথে বা খিচুড়ির সঙ্গে গরম বেগুন ভাজা খেতে ভীষন ভালোবাসে। আবার অনেকের বেগুন খেলে এলার্জি হয় তারা অবশ্যই সেই সবজি খাবেন না। বেগুনের অনেক উপকারিতাও রয়েছে আমাদের শরীরের জন্য। বেগুনে আয়রন প্রচুর পরিমাণে থাকায় রক্তশূন্যতার রোগীদের জন্যও এই সবজি ব্যাপখ উপকারী। ভিটামিন এ, সি, ই এবং কে সমৃদ্ধ সবজি এই বেগুন।

তবে জানেন কিভাবে নিজেরাই বাড়িতে টবে সবুজ সুন্দর বেগুন চাষ করবেন? বাজার চলতি বেগুনের থেকে আপনি বাড়িতে শুধুমাত্র কিছু সার ও সঠিক পরিচর্যা করে বেগুন ফলাতে পারবেন। খুব সহজেই তৈরী করে ফেলুন বেগুন চাষের উপযুক্ত মাটি। এই প্রতিবেদনের মাধ্যমেই আপনাদের দেখাবো কিভাবে করবেন এই বেগুনের চাষ।

প্রথমে টব বা বালতির মধ্যে মধ্যে দোঁয়াশ মাটি ও গোবর সার মিশিয়ে বেগুন গাছের মাটি তৈরী করে নিন। এবার বাজার চলতি বেগুন গাছের চারা অথবা আপনি নিজেই বাড়িতে বেগুনের বীজ থেকে চারা তৈরী করে তারপরে টবে বসাতে পারেন। একটি টবের মধ্যে দুটি চারা গাছের বেশি পুঁতবেন না। তার পরে জল দিয়ে মাটি ভালো করে ভিজিয়ে নিন। ১৫ দিনের মধ্যেই বেগুন চারা গুলি বেশ বড়ো হয়ে যাবে। বেগুন গাছে পোকার আক্রমণ হয় খুব বেশি। সেই কারণে আপনাকে কিছু পরিমান রাশায়নিক সার ব্যবহার করতেই হবে।

প্রথমে আপনাকে ১০ গ্রাম মতো গাছের গোড়ায় দিতে হবে ফুরাডান। এরপরে ৬ গ্রাম ভিটামিন গুঁড়ো দিতে হবে গাছের গোড়ায়। এর পরে ১৫-২০ গ্রামের মতো ‘টিএসপি’ সার গাছের গোড়ায় ছড়িয়ে দিতে হবে। সাথেই দেবেন ৮-১০ গ্রাম ইউরিয়া সার যা আপনার গাছের নাইট্রোজেনের ঘাড়তি পুরন করবে। আপনি অবশ্যই ৮-১০ গ্রাম পটাস সার ও দিয়ে দেবেন। এবার সব সার দেওয়া হয়ে গেলে গোবর সার ও মাটি মিশিয়ে ঢেকে দিন গাছের গোড়া।

দিন তিরিশ পরেই দেখা যাবে বেগুন কত বড়ো হয়ে গেছে। বেশি বড়ো হয়ে গেলে তখন আপনি গাছ গুলি মাচা বেঁধে দিতে পারেন। ৪০-৫০ দিনের মাথায় দেখবেন বেগুন গাছে বেশ বড়ো বড়ো বেগুন এসেছে। তখন আপনি আলতো করে বেগুন ছিঁড়ে নিয়ে খেতে পারবেন। তবে দেখবেন গাছের বাকি ফুল বা বেগুনে যেন আঘাত না লাগে।

Back to top button