রান্নাঘর থেকে বি-ষাক্ত কোবরা সাপ উদ্ধার করতে গিয়ে চরম বি-পদে পড়লেন যুবক! তুমুল ভাইরাল হল ভিডিও।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- ভারতবর্ষে বিভিন্ন প্রজাতির সাপ রয়েছে । তবে সবথেকে বিষধর সাপ হলো কোবরা । কোবরা সাপের কা-মড় মাত্র ১৫ মিনিটে মা-রা যেতে পারে যেকোন মানুষ । তবে সঠিক সময় যদি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় তাহলে হয়তো বেঁচে ফেরা সম্ভাবনা কিছুটা হলেও থেকে যায় । এবার সেই ঘটনা দেখা গেল উত্তরপ্রদেশে গ্রামে এক বাসিন্দার সাথে ।২৪ বছরের ছেলের মৃ-ত্যুর সাথে পাঞ্জা ল-ড়ছে কারণ তাকে কোবরা সাপ কা-মড়েছে ।

রাস্তাঘাটে বনে-জঙ্গলে সাপের কথা শুনলে আমাদের গা ছম-ছম করে ওঠে । কারণ হল এমন এক ধরনের সরীসৃপ প্রাণী যার এক ছোবলেই জীবন শে-ষ হয়ে যেতে পারে ।এবং এই ঘটনার প্রমাণ আগেকার যুগে প্রতিনিয়ত পাওয়া যেত । আগেকার যুগে গ্রামে-গঞ্জে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে মানুষের মৃ-ত্যুতে সাপের কা-মড়ে । কারণ তখন উন্নত চিকিৎসা ব্যবস্থা বা হাসপাতালে ব্যবস্থা ছিল না ।যতদিন আমরা উন্নত হয়েছি । তার সাথে সাথে কমেছে এর প্রবণতা কিন্তু একেবারে নির্মূল হয়েছে তেমনটা কিন্তু বলা যেতে পারে না ।

যেহেতু সাপের কামড়ে মৃত্যু হয় তাই সাপ সম্পর্কে একটা আত-ঙ্ক মানুষের মনে কাজ করে ।সেটি বি-ষাক্ত সাপ হলেও একই ধরনের কাজ করে ।আবার বি-ষাক্ত না হলেও একই প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়। কিন্তু সেই সাপকে উদ্ধার করার জন্য প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত একদল যুবক বা মহিলাদের দেখা যায় যাদেরকে স্থানীয় ভাষায় আমরা সাপুড়ে বলে থাকি ।এই সাপুড়ের বিভিন্ন সাহসিকতার ভিডিও এবং কাজকর্মে প্রমাণ আমরা সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে পেয়ে থাকি বিভিন্ন সময় সম্প্রতি পেলাম আর একবার ।

ঘটনাটি খুব সম্ভবত উত্তরপ্রদেশে কোন একটি গ্রামের । তবে বাড়ির কোন ঘর থেকে বা আশেপাশের কোন পরিত্যক্ত জায়গা থেকে সাত নয় বরং আপনি জানলে অবাক হবেন যে একটি বাড়ির রান্না ঘটে মধ্যে থেকে উঁ-কি দিচ্ছে বি-ষাক্ত কোবরা সাপ । রান্নাঘরে প্রবেশ করেছে একটি বি-ষাক্ত কোবরা সাপ । সেটি প্রথমে নজরে আসে সেই বাড়ির সদস্যদের । তারপর তারা খবর দেয় এক স্থানীয় সাপুরে কে ।

সেই সাপুড়ে এসে জানতে পারে যে সেখানকার এক বাসিন্দা কে সাপের কামড় দিয়েছে আর তার সেই ঘরেই ২৪ বছরের এক যুবকের সেই সাপে কা-মড় দিয়েছে তাকে । এখন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে । মৃ-ত্যুর সাথে পাঞ্জা ল-ড়ছে সে । অবশেষে সমস্ত রকম সরঞ্জাম দিয়ে সেইসব সাপুড়ে রান্নাঘর থেকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয় এবং পরবর্তী ক্ষেত্রে নিরাপদ জায়গায় ছেড়ে দেবে বলে জানা যাচ্ছে ।

Back to top button