এইভাবে ফুলকপির রোস্ট বানালে স্বাদ হবে দুর্দান্ত, চেটেপুটে থালা হবে সাফ!

নিজস্ব প্রতিবেদন:- নিরামিষের দিনে কি খাওয়া যেতে পারে এই নিয়ে বাড়ি গৃহিণীদের চিন্তার অবকাশ থাকে না। আবার প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় একই ধরনের খাবার খেতেও আমাদের ভালো লাগে না। তাই আজকের এই প্রতিবেদনে রাজকীয় স্বাদের ফুলকপির রোস্ট রেসিপি শেয়ার করা হলো। যা যে-কোনো পুজো-পার্বণের দিনে অথবা নিরামিষের দিনও খুব সহজেই চটজলদি বানিয়ে নেওয়া যেতে পারে। যা বাড়ির ছোট থেকে বড় সকলেই রুটি, পরোটা, লুচি, ফ্রায়েড রাইস, নান সকলের সঙ্গে একেবারে চেটেপুটে খাবে।

  • উপকরণ :
    ১) ফুলকপি
    ২) চারমগজ, পোস্ত ও কাজুবাদাম
    ৩) টক দই
    ৪) সাদা তেল ও ঘি
    ৫) দারচিনি, লবঙ্গ ও এলাচ
    ৬) গোলমরিচ, জয়িত্রী ও শুকনো লঙ্কা
    ৭) নুন
    ৮) আদা লঙ্কা বাটা
    ৯) লঙ্কাগুঁড়ো
    ১০) জিরে গুঁড়ো
    ১১) ধনেগুঁড়ো
    ১২) জায়ফল, কেওড়া জল ও কাসৌরি মেথি
    ১৩) গরম মশলা গুঁড়ো
  • প্রণালী :

১) প্রথমে একটি ফুলকপিকে ভালো করে ধুয়ে বড় সাইজ করে কেটে নুন, গরম জলে দু-তিন মিনিট ধরে ভিজিয়ে ধুয়ে নিতে হবে।

২) এরপর চারমগজ, পোস্ত ও কাজুবাদাম শুকনো অবস্থায় মিক্সিতে পেস্ট করে নিয়ে দই দিয়ে আবারও ভালো করে পেস্ট করে নিতে হবে।

৩) এখন কড়াইতে সাদা তেল ও ঘি গরম করে মাঝারি আঁচে ফুলকপিগুলিকে ভেজে নিতে হবে।

৪) ওই তেলে তেজপাতা, দারচিনি, গোটা জিরে, এলাচ, লবঙ্গ, গোলমরিচ, জয়িত্রী ও শুকনো লঙ্কা ফোড়ন দিয়ে নেড়েচেড়ে আদা ও লঙ্কাবাটা, স্বাদমতো নুন, আগে থেকে করে রাখা মসলার পেস্ট ও পরিমাণমতো জল দিয়ে ভাল করে মিশিয়ে কয়েক সেকেন্ড ধরে রান্না করে নিতে হবে।

৫) ধনে গুঁড়ো, লঙ্কাগুঁড়ো, জিরে গুঁড়ো ও স্বাদমতো লবণ দিয়ে ভালো করে কষিয়ে নিয়ে ভেজে রাখা ফুলকপি গুলিকে দিয়ে আবারো ভাল করে কষিয়ে নিয়ে উষ্ণ গরম জল ও সুন্দর গন্ধ হওয়ার জন্য গ্রেট করা জায়ফল, কেওড়া জল ও সামান্য পরিমাণে কাসৌরি মেথি ও গরম মশলা গুঁড়ো দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে এক মিনিটের মত ঢেকে রান্না করে নিতে হবে।

৬) গ্যাসের ফ্লেম অফ করে তিন চার মিনিটের মত ঢেকে রেখে দিলেই তৈরি হয়ে যাবে অসাধারণ স্বাদের এই রেসিপিটি।

Back to top button