যারা তরমুজ খান বা তরমুজ খেতে ভালোবাসেন তারা আগে দেখুন, নইলে অনেক দেরি হয়ে যাবে!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- তরমুজ মানেই মনে একটা প্রশান্তি । গ্রীষ্মকালে বাঙালির প্রিয় ফলের মধ্যে অন্যতম একটি ফল হয়ে ওঠে তরমুজ । তরমুজ যেহেতু রসালো প্রকৃতির হয়ে থাকে তাই গ্রীষ্মকালে মনের এবং দেহের শান্তির জন্য অনেকে তরমুজ খেয়ে থাকেন । তার পাশাপাশি তরমুজের মধ্যে এমন বেশ কিছু খনিজ উপাদান এবং ভিটামিন রয়েছে যা শরীরের পক্ষে অত্যন্ত জরুরি । তাই একদিকে মন এবং দেহের জন্য তরমুজ যেমন উপকারী অন্যদিকে কিন্তু শরীর স্বাস্থ্য ঠিক রাখার জন্য তরমুজ দরকার ।

ডাক্তারবাবুরা অনেক সময় অসুস্থ কোন ব্যক্তিকে তরমুজ খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন। কারণ তরমুজে রয়েছে এমন বেশ কিছু গুণ যা আপনার শরীরের মধ্যে প্রবেশ করলে আপনার শরী-রের রো-গ প্র-তি-রো-ধ ক্ষ-মতা দ্রুত বেড়ে উঠবে তার পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের উপকার হবে আপনার শরীরে ।তাই তরমুজ খাওয়া অত্যন্ত জরুরী । আসুন জেনে নেবো তরমুজ খেলে কি কি উপকার ও ক্ষতি হয় । তরমুজে রয়েছে ফাইবার।

তাই অতিরিক্ত তরমুজ খেলে ডায়রিয়া-সহ পে-টের নানা রো-গ দেখা দিতে পারে। এতে রয়েছে সরবিটল (সুগার কমপাউন্ড) যার ফলে অম্বল, ব-দ-হ-জমের মতো স-মস্যা হতে পারে। এছাড়া লা-ই-কোপিন নামক রা-সা-য়-নিকের কারণে তরমুজের রং উজ্জ্বল ও গাঢ় হয়। লাইকোপিন এক প্রকার অ্যা-ন্টি-অ-ক্সিডেন্ট যা অধিক মাত্রায় শরীরে গেলে পেটের নানা স-মস্যা হতে পারে। হ-জমের স-মস্যাও দেখা দিতে পারে। এর পাশাপাশি উপকার হিসেবে যদি আপনি জানতে চান তাহলে বলব যে তরমুজের মধ্যে রয়েছে ৯৬ শতাংশ জল এবং এর মধ্যে কোন ফ্যাট বা চর্বি থাকে না ।

সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক উপায়ে তৈরি হয় যেহেতু এটি তার শরীর এবং স্বাস্থ্যের পক্ষে অত্যন্ত ভালো । অপকার থেকে উপকার বেশি পাওয়া যায় তরমুজ খেলে । এমনকি বার্ধক্যজনিত বয়সের ছাপ দূর হয়ে যায় যদি প্রতিনিয়ত কেউ তরমুজ খায় । তবে কোন জিনিস বেশি ভালো নয় । তাই নিয়ম মেনে সঠিক উপায়ে তরমুজ খাওয়া দরকার। এর পাশাপাশি চোখের রেটিনা হা-র্ট ও অন্যান্য ফু-স-ফুস অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ গু-লিকে স-জাগ রাখতে এবং সঠিক রাখতে সাহায্য করে এটি ।

Back to top button