মাটিতে গর্ত করে ওপরে কাগজের বোর্ড কে-টে লাগিয়ে দারুণ কায়দায় একের পর এক পাখি -শি-কা-র- করছেন যুবতী, ভাইরাল ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- আমরা যারা জ-ঙ্গলে গিয়ে থাকি তারা ভালো রকম ভাবে দেখতে পাবো যে কিভাবে একে অপরকে স্বীকার করে চলেছে প্রতিনিয়ত । কারন প্রতিটা মুহূর্তে অস্তিত্ব সং-গ্রা-মের ল-ড়াই চলে আমাদের সকলের মধ্যে । শুধুমাত্র মনুষ্য প্রজাতির নয় পশুপাখি জীব-জ-ন্তু দের মধ্যে টিকে থাকার জন্য চলে অ-দম্য এক ল-ড়াই । এবং সেই ল-ড়াই খাদ্য পিরামিডের খুব স্বাভাবিক একটি ঘটনা । কখনো কখনো সেই ল-ড়াই ম-র্মা-ন্তিক এবং দু-র্ভিক্ষ সহ হলেও সাধারণ মানুষের ক্ষেত্রে কিছু করার থাকে না । কারণ এই লড়াই নিজের অস্তিত্বকে বাঁচিয়ে রাখার ল-ড়াই।

কিন্তু লড়াই ছাড়াও আ-ক্র-মণ বা শি-কার করা যেতে পারে এক অভিনব পদ্ধতিতে ।নএবং বর্তমান প্রজন্মের বিভিন্ন য-ন্ত্র-পাতির আবিষ্কার হয়েছে একথা আমরা সকলেই জানি । সেই য-ন্ত্র-পাতি দ্বারা বিভিন্ন পশুপাখি বা জী-ব-জ-ন্তু কে আমরা সহজেই আ-ক্র-মণ বা শি-কার করতে পারি । কিন্তু যারা গ্রামে থাকেন তাদের ক্ষেত্রে ঘটনাটা একটু আলাদা রকম হয় । যারা গ্রামে থাকেন তাদের ক্ষেত্রে থাকেনা হাতের সামনে এত আধুনিক য-ন্ত্র-পাতি ।

কাজেই তাদের কে নিজের বুদ্ধি থেকে বের করতে হয় এমন কিছু কৌশল যা কোনো আধুনিক য-ন্ত্র-পাতি থেকে কম নয় । এবং সেই সমস্ত কৌশল মাঝে মধ্যেই আমরা সোশ্যাল মিডিয়ার ধরণ দেখতে পাই । সম্প্রতি দেখা গেল আরো একবার । সম্প্রতি ইউটিউবে একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সেখানে দেখানো হয়েছে যে কিভাবে অভিনব পদ্ধতিতে যে কোন প্রাণীকে সেটি হতে পারে হাস হতে পারে বা অন্যান্য যে কোন প্রাণীকে আপনি সহজেই স্বীকার করতে পারেন কোন রকম আঘাত ছাড়াই । প্রথমে ওই ব্যক্তি মাটির মধ্যে বড় একটি গর্ত খুঁড়ে ছিল এবং সেই গর্তের উপরে দিয়েছিল একটি কার্ডবোর্ড ।

কিন্তু কার্ডটি বিশেষভাবে কা-টা ছিল । অর্থাৎ কার্ডবোর্ড টি বিভিন্ন অংশে ভাগ করা ছিল । যদি কোন প্রাণী তার ওপর চা-প প্র-য়োগ করে তাহলে সে সোজা নিচে ঢুকে যাবে । বলতে পারেন কিছুটা ভাল্ব এর মতন অর্থাৎ একবার ঢুকে গেলে আর বেরনো যাবে না । এবং ভিডিওটি দেখলে আমি নিজেই বুঝতে পারবেন যে কিভাবে সেখানে বিচরণ করা মুরগি গু-লি খাবারের লোভে সেই কার্ডবোর্ডের উপর পা রেখে সরাসরি নিচে প্রবেশ করছে। এই পদ্ধতিটি অনেকের ভাল লেগেছে। তাই অনেকেই ধরনের পদ্ধতি অবলম্বন করার চেষ্টা করছেন।

Back to top button