গো হারা হেরে গেলেন তারকা প্রার্থী শ্রাবন্তী, হেরে গিয়ে কেঁ’দে ভা’সালেন অভিনেত্রী , তু’মু-ল ভাইরাল ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- এত বিশ্বাস প্রতিশ্রুতি সব নিমিষের মধ্যে শেষ হয়ে গেল । বিপুল সংখ্যক ভোটে হার স্বীকার হল শ্রাবন্তীর । তারপরে প্রতিক্রিয়া কী মিলল শ্রাবন্তীর কাছ থেকে জেনে নেবো আজকের এই প্রতিবেদনে । শ্রাবন্তী চ্যাটার্জী শুধুমাত্র অভিনয় জগতে একজন সুপরিচিত নাম তেমন কিন্তু নয় তার পাশাপাশি রাজনৈতিক জগতে একজন সুদক্ষ এমনটা বলা যেতে পারে । কিন্তু তার ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে যদি লক্ষ্য করা যায় তাহলে দেখা যাবে যে তার ব্যক্তিগত জীবনে থেকে গেছে একরাশ খা-মতি ও না পাওয়ার গল্প ।

এবং সেই না পাওয়ার গল্প গু-লি বারেবারে উঠে আসে মানুষের সামনে আর তখনই শ্রাবন্তী চাইলেও এগোতে পারে না । তেমনই বলছে ভোটের ফলাফল । প্রত্যেকই তাকিয়েছিল ২০২১ এর হাইভোল্টেজ বিধানসভা ভোটের ফলাফলের জন্য গত দুদিন আগে ফল প্রকাশিত হয়েছে এবং ফল প্রকাশিত হবার পর থেকে আনন্দের উ-চ্ছ্বাস দেখা গেছে গোটা রাজ্যের রাজনীতিতে । সবুজ আবির এ মেতে উঠেছে শহরের প্রতিটি অলিতে-গলি চলছে মিষ্টি বিতরণ । কারণ তৃতীয়বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন মমতা ব্যানার্জি ।বাংলা নিজের মেয়েকে চাই এই শ্লোগানটি তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে সফল হয়েছে ।

কিন্তু যে প্রার্থী বলেছিলেন যে তিনি বেহালা পশ্চিমের ঘরের মেয়ে অর্থাৎ তিনি এলাকার মেয়ে তাই এলাকার মানুষ তাকে চাই কিন্তু সেই প্রার্থী আ-শ্চর্যজনকভাবে হেরে গেলেন । তারপর শুরু হয়েছে ক-টাক্ষ স-মা-লোচনা । বেহালা পশ্চিমে পার্থ চট্টোপাধ্যায় এর বি-রুদ্ধে বিজেপির প্রার্থী হয়েছিলেন শ্রাবন্তী চ্যাটার্জী । যেখানে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি হেভিওয়েট নেতার মধ্যে নুসরাত-মিমি দেরকে ভরসা করেছিলেন এবং জয়লাভ করেছিলেন সেখানে মোদী অমিত শাহ ভরসা করেছিলেন শ্রাবন্তী চ্যাটার্জীর উপর ।

কিন্তু তিনি জয়লাভ করতে পারলেন না বরং ভোটের আগে প্রচারে তাকে বারবার বলতে শোনা গেছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি এবং তার সরকার নিয়ে বিভিন্ন উ-স্কা-নিমূলক মন্তব্য । এতকিছু করেও কোনো কিছুই কাজে এলোনা । অবশেষে প্রায় ৫০ হাজার ভোটের ব্যবধানে পার্থ চট্টোপাধ্যায় কাছে হার স্বীকার করতে হলো শ্রাবন্তী চ্যাটার্জী কে যা তার পক্ষে অত্যন্ত ল-জ্জা-জনক । ইতিমধ্যে সেই খবর প্রকাশ্যে এসেছে । সকলে জেনেছেন । তবে এতে বিন্দুমাত্র ভে-ঙে প-ড়েনি শ্রাবন্তী চ্যাটার্জী। তিনি বলেছেন যে ভোটে হার জিত রয়েছে । তাহলে ভেঙে পড়া কোন মানে হয় না । আমি পরেরবার বিপুলসংখ্যক ভোটে জয়লাভ করবো । এমনকি সেই দিনও তার কণ্ঠে প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির প্রশংসা শোনা যায় ।যদিও তার এই ঘটনাকে নিয়ে এখন ক-টুক্তি এবং স-মা-লোচনা তু-ঙ্গে ।

Back to top button