একটুখানি দিলেই বদলে যাবে যেকোনো রান্নার স্বাদ! শুধু বাড়িতেই খুব সহজ এই ঘরোয়া পদ্ধতিতে বানিয়ে রাখুন এলাচের গুঁড়ো

নিজস্ব প্রতিবেদন: আমাদের দৈনন্দিন অনেক রান্নার কাজেই কিন্তু এলাচ গুঁড়ো ব্যবহার করা হয়ে থাকে। এই এলাচ গুঁড়া রান্নার স্বাদে কতটা পরিবর্তন নিয়ে আসে তা হয়তো আপনাদের আর বিস্তারিত বলার প্রয়োজন নেই।। যদিও আজকাল বাজারে যে সমস্ত এলাচ গুড়োর প্যাকেট কিনতে পাওয়া যায় তাতে খুব একটা স্বাদ হয় না বলাই চলে।

তাই আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা আপনাদের সাথে শেয়ার করে নিতে চলেছি বাড়িতে খুব সহজেই এলাচ গুঁড়ো তৈরীর বিশেষ পদ্ধতি। হয়তো অনেকেই মনে করতে পারেন এটা বানানো ভীষণ রকমের কঠিন। তবে তা কিন্তু একেবারেই নয়। চলুন আর দেরি না করে চলে যাওয়া যাক প্রতিবেদনের মূল পর্বে।

এলাচ গুঁড়ো তৈরি করার পদ্ধতি:

এলাচ গুঁড়ো তৈরি করার জন্য আপনাদের প্রথমেই গ্যাসে একটা চাটু বসিয়ে নিতে হবে। এবার গ্যাসের আঁচ একদম কমে রেখে আপনাদেরকে চাটু গরম করে নিতে হবে। এর মধ্যে ২৫ গ্রাম এলাচ দিয়ে ক্রমাগত নাড়াচাড়া করতে হবে যাতে পুড়ে না যায়। মিনিট দুয়েক এভাবে রোস্ট করে নেওয়ার পরে আপনাদের এটাকে নামিয়ে ঠান্ডা হয়ে যেতে দিতে হবে।

এবারে এলাচ গুলি ঠান্ডা হয়ে গেলে আপনাদেরকে মিক্সিতে গুড়ো করে নিতে হবে। প্রথমবার করে যে পাত্রে এটা রাখবেন তার উপর শুকনো ছাঁকনি রেখে এটা ঝেরে নিন। মিহি হয়ে যাওয়া অংশ পাত্রের ভিতরে স্টোর হয়ে যাবে। তারপর বাকিটা গুড়ো করে নিন আর সবকটা গুড়ো না হওয়া পর্যন্ত করতে থাকুন। তৈরি হয়ে গেল আপনাদের এলাচ গুঁড়া বা এলাচ পাউডার।

২)এলাচ গুঁড়া খাওয়ার উপকারিতা:

বিভিন্ন রান্নায় এলাচ গুঁড়ো ব্যবহার করার কিন্তু কিছু উপকারিতা রয়েছে যা হয়তো অনেকেরই অজানা। এটি পেটে পিত্ত অ্যাসিডের নিঃসরণ নিয়ন্ত্রণ করতে সহায়তা করে। এছাড়াও এর মাধ্যমে বিভিন্ন গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইনাল রোগ যেমন- অ্যাসিড রিফ্লাক্স, বুকজ্বালা, ডায়রিয়া ইত্যাদি কিছুটা হলেও প্রতিরোধ করা যায়। অনেক মানুষ এমন রয়েছেন যাদের পেটের সমস্যার জন্য কিন্তু মুখ থেকে গন্ধ বেরোয়। তারা যদি সকালে এক চামচ এলাচ গুঁড়ো দিয়ে একটু জল খান তাহলে কিন্তু এই দুটো সমস্যা থেকেই খুব সহজে মুক্তি পেয়ে যাবেন। সুতরাং বুঝতেই পারছেন এলাচ গুঁড়ো বা এলাচ পাউডারের কতখানি ভূমিকা রয়েছে।

কোন কোন রান্নায় সাধারণত এলাচ গুঁড়ো ব্যবহার করা হয়?

ভারতীয় অনেক রান্নাতেই কিন্তু এলাচ গুঁড়ো বা এলাইচি পাউডার ব্যবহার করা হয়ে থাকে। কিন্তু এই সম্পর্কে অনেকের কোন রকমের স্পষ্ট ধারণা নেই। আজকের এই প্রতিবেদনে আমরা এমন কিছু খাবারের নাম উল্লেখ করতে চলেছি যেখানে সাধারণত সবথেকে বেশি এলাচ গুড়োর ব্যবহার হয়ে থাকে। যদিও এরকম প্রচুর রান্না রয়েছে যা হয়তো এই ছোট্ট প্রতিবেদনের মাধ্যমে লিখে শেষ করা যাবে না। চলুন সেই বিশেষ কয়েকটি রান্নার নাম জেনে নেওয়া যাক—

১) ডাল মাখানি
২) অমৃত পেরা
৩) বোঁদে মিষ্টি
৪) মালাই কুলফি
৫) জিলিপি
৬) মোঘলাই ঘরানার নানা রেসিপি
৭) পনির মাখানি রেসিপি।
৮) খাসির মাংসের যেকোনো পদ
৯) পায়েস বা মিষ্টান্ন
১০)ছানার ডালনা

Back to top button