বয়কটের মুখে পড়েও দারুণ কামব্যাক! ‘কাশ্মীর ফাইলস’কে ছাপিয়ে গিয়ে দেশ বিদেশ জুড়ে বড়ো রেকর্ড রণলিয়ার ব্রহ্মাস্ত্রের

নিজস্ব প্রতিবেদন: মুক্তির আগে থেকেই দেশ থেকে শুরু করে বিদেশের বিভিন্ন প্রান্তে চর্চার বিষয়বস্তু হয়ে উঠেছিল রণবীর আলিয়ার ব্রহ্মাস্ত্র। চলতি বছরে একের পর এক বলিউড ছবি মুখ থুবড়ে পড়ার পরে এই ব্রহ্মাস্ত্র কে কেন্দ্র করেই কিন্তু শেষমেশ আশা প্রকাশ করেছিলেন নির্মাতারা। আর এই ছবিটি প্রায় সমস্ত আশা পূর্ণ করতেই সক্ষম হয়েছে বলেই আমরা মনে করতে পারি। বয়কট বলিউড ট্রেন্ডের মাঝেই কিন্তু একের পর এক রেকর্ড ভেঙ্গে চলেছে রণবীরের এই ছবি।

এমনকি চলতি বছরের বেশ কিছু সুপারহিট চলচ্চিত্রকেও কিন্তু পেছনে ফেলে দিয়েছে ব্রহ্মাস্ত্র। যেমন ধরুন দ্য কাশ্মীর ফাইলস। পাঠকদের উদ্দেশ্যে জানিয়ে রাখি, চলতি বছর বলিউডের ভরাডুবির মাঝেও বক্স অফিসে ঝড় তুলেছিল বিবেক অগ্নিহোত্রী পরিচালিত ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’। তবে এবার সেই সিনেমাকেই ওয়ার্ল্ডওয়াইড বক্স অফিস কালেকশনের নিরিখে পিছনে ফেলে দিল রণবীর-আলিয়ার সিনেমা।

প্রসঙ্গত ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’ সারা বিশ্বে মোট ৩৪০ কোটি টাকার ব্যবসা করেছিল। সেই জায়গায় অয়ন মুখোপাধ্যায় পরিচালিত ব্রহ্মাস্ত্রের বিশ্বব্যাপী আপাতত মোট উপার্জনের পরিমাণ ৩৫০ কোটি টাকা। সুতরাং বুঝতেই পারছেন খুব শীঘ্রই এই ছবিটি কিন্তু আরও এগিয়ে যেতে চলেছে তাতে কোনো সন্দেহ নেই। যদিও এখনও পর্যন্ত ভারতে বক্স অফিস কালেকশনে কাশ্মীর ফাইলস কে কিন্তু পেছতে পারেনি এই সিনেমা।

চলতি বছরে সব থেকে বেশি ব্যবসা করার সিনেমার তালিকায় রয়েছে কাশ্মীর ফাইলস আর ঠিক তার পরেই দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে অয়ন মুখোপাধ্যায়ের ব্রহ্মাস্ত্র।তৃতীয় স্থানে রয়েছে কার্তিক আরিয়ান অভিনীত ‘ভুল ভুলাইয়া ২’এর নাম। উল্লেখ্য অয়ন মুখার্জি পরিচালিত এই সিনেমাটি প্রায় 410 কোটি টাকার বাজেটে নির্মিত হয়েছে। এই সিনেমাটির মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করছেন রণবীর কাপুর এবং আলিয়া ভাট।

এছাড়াও অমিতাভ বচ্চন এবং মৌনি রায়ের মতন তারকাদের দেখা যাবে এই সিনেমায়। সিনেমার কয়েকটি বিশেষ দৃশ্যে রয়েছেন বলিউড বাদশা শাহরুখ খান, দীপিকা পাড়ুকোন এবং দক্ষিণী অভিনেতা নাগার্জুন। সুতরাং এক কথায় ব্রহ্মাস্ত্রকে কিন্তু মাল্টি স্টারার সিনেমা বলা যেতে পারে। ছবিটিতে ভিএফএক্স এর কাজ কিন্তু ভীষণভাবে প্রশংসা করার মতো।

স্টোরি লাইন নিয়ে অনেকেই একটু নিম্নমানের রিভিউ দিলেও ভিএফএক্স এর কাজের কিন্তু সকলেই অত্যন্ত বেশি রকমের প্রশংসা করেছেন। বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে এই ধরনের সিনেমা যে আগে নির্মিত হয়নি এ কথা বলা যেতেই পারে।ভারতের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক বাজারেও এই চলচ্চিত্রের ফলাফল দেখে খুশি নির্মাতারা। প্রসঙ্গত এই ছবির গল্প শুরু হয় বিজ্ঞানী মোহন ভার্গব তথা শাহরুখ খানের কাছ থেকে ব্রহ্মাস্ত্রের তিনটি অংশের একটি ছিনিয়ে নেওয়ার মাধ্যমে।

জুনুনের সাহায্যে ব্রহ্মাস্ত্রের তিনটি অংশ একসাথে করে শক্তিশালী এই অস্ত্রের মালিক হতে যায় দেব। পাঠকদের উদ্দেশ্যে জানিয়ে রাখি যে, বিগত কয়েক দিনের মধ্যেই এই চলচ্চিত্রটি ইতিহাসের সবচেয়ে বেশী স্ক্রিনে মুক্তি পাওয়ার রেকর্ড গড়েছে। সিনেমাটি বিশ্বব্যাপী প্রায় ৯,০০০ স্ক্রিনে মুক্তি পেয়েছে। এর মধ্যে সিনেমাটি ৫,০০০-এর বেশী স্ক্রিনে প্রদর্শিত হচ্ছে।

সিনেমাটির নির্মানে প্রায় ৪১০ কোটি রুপি খরচ করেছেন নির্মাতারা। ‘অস্ত্রভার্স’ ট্রিলজির প্রথম পর্ব ‘ব্রহ্মাস্ত্র – পার্ট ১: শিবা’ হিন্দি, তামিল, তেলুগু, কন্নড় এবং মালয়ালাম ভাষায় প্যান ইন্ডিয়া মুক্তি পেয়েছে। এই ছবিটির তামিল, তেলুগু, কন্নড় এবং মালায়ালাম ভাষায় পরিবেশনার দায়িত্বে আছেন তেলুগু সিনেমার স্বপ্নবাজ নির্মাতা এস এস রাজামৌলি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button